০১:১৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পাকিস্তান বারবার শান্তি নষ্টের চেষ্টা করছে: রাজনাথ

ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেছেন, “পাকিস্তান ক্রমাগতভাবে রক্তপাত করার মাধ্যমে ভারতের শান্তি বিঘ্নিত করার চেষ্টা করছে।” বৃহস্পতিবার, ভারতের কেন্দ্র শাসিত জম্মু ও কাশ্মীর সফরে গিয়ে এমন মন্তব্য করেন তিনি। এসময়, অঞ্চলটিতে উল্লেখযোগ্য হারে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড হ্রাস পেয়েছে বলেও মন্তব্য করেন মোদী মন্ত্রীসভার গুরুত্বপূর্ণ এই সদস্য।

পরবর্তীতে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ বলেছেন, “আমাদের প্রতিবেশী সবসময়ই ভারতবিরোধী কার্যকলাপের আশ্রয় নিয়েছে। আমাদের রাষ্ট্র অতীতেও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের ভূক্তভোগী ছিল। তবে, সশস্ত্র বাহিনী, বিএসএফ, সিআরপিএফ এবং জম্মু ও কাশ্মীরের পুলিশ কর্মীদের নিরলস প্রচেষ্টার কারণে, সম্প্রতি রাজ্যে সন্ত্রাসী কার্যকলাপের সংখ্যা উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পেয়েছে।”

রাজনাথ বলেন, “পাকিস্তান ক্রমাগতভাবে ভারতকে রক্তাক্ত করার মাধ্যমে দেশের শান্তি বিঘ্নিত করার চেষ্টা করে। কিন্তু, আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী এই দেশের জন্য এমন একটি প্রতিরক্ষামূলক ঢাল, যখনই কেউ এটি ভাঙার চেষ্টা করে, আদতে নিজেকে রক্তাক্ত করে। আমাদের জাতির প্রতি আমার অগাধ বিশ্বাস রয়েছে। আমাদের বাহিনী সবসময় যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে প্রস্তুত থাকে।”

এর আগে সেনাবাহিনীতে নিয়োগ নিয়ে বার্তা দিলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। বিহার থেকে উত্তরপ্রদেশ হয়ে তেলঙ্গনা— কেন্দ্রের ‘অগ্নিপথ’ প্রকল্পের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে উত্তাল সারা দেশ। তার মধ্যেই এক টুইটে তিনি জানান, দেশের যুবকদের জন্য সুবর্ণ সুযোগ এনেছে অগ্নিপথ। তাঁদের হাতে রয়েছে দেশের সেবা করার বড় সুযোগ।

তিনি আরও লিখেন, “তরুণদের ভবিষ্যতের দিকে তাকিয়ে সংবেদনশীল সিদ্ধান্তের জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে হৃদয় থেকে ধন্যবাদ। আমি তরুণদের কাছে আবেদন জানাচ্ছি, কয়েক দিনের মধ্যেই সেনাবাহিনীতে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হতে যাচ্ছে। এর জন্য তারা প্রস্তুতি শুরু করুক।”

প্রসঙ্গত, অগ্নিপথ প্রকল্পের ঘোষণা করেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। এই প্রকল্পে সাড়ে ১৭ থেকে ২১ বছরের তরুণ-তরুণীরা চার বছরের জন্য মাসিক ৩০-৪৫ হাজার টাকার চুক্তির ভিত্তিতে সশস্ত্র বাহিনীর তিন শাখায় (স্থল, নৌ এবং বায়ুসেনা) যোগ দিতে পারবেন। তাঁদের বলা হবে ‘অগ্নিবীর’। সেনায় শূন্যপদ ও যোগ্যতার ভিত্তিতে চতুর্থ বছরের শেষে সেই ব্যাচের সর্বাধিক ২৫ শতাংশ অগ্নিবীরকে সেনায় অন্তর্ভুক্ত করা হবে। বাকিদের ১১-১২ লক্ষ টাকা হাতে দিয়ে পাঠানো হবে অবসরে। কোনও পেনশন থাকবে না। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

পাকিস্তান বারবার শান্তি নষ্টের চেষ্টা করছে: রাজনাথ

প্রকাশ: ০৬:৩১:১৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৭ জুন ২০২২

ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেছেন, “পাকিস্তান ক্রমাগতভাবে রক্তপাত করার মাধ্যমে ভারতের শান্তি বিঘ্নিত করার চেষ্টা করছে।” বৃহস্পতিবার, ভারতের কেন্দ্র শাসিত জম্মু ও কাশ্মীর সফরে গিয়ে এমন মন্তব্য করেন তিনি। এসময়, অঞ্চলটিতে উল্লেখযোগ্য হারে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড হ্রাস পেয়েছে বলেও মন্তব্য করেন মোদী মন্ত্রীসভার গুরুত্বপূর্ণ এই সদস্য।

পরবর্তীতে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ বলেছেন, “আমাদের প্রতিবেশী সবসময়ই ভারতবিরোধী কার্যকলাপের আশ্রয় নিয়েছে। আমাদের রাষ্ট্র অতীতেও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের ভূক্তভোগী ছিল। তবে, সশস্ত্র বাহিনী, বিএসএফ, সিআরপিএফ এবং জম্মু ও কাশ্মীরের পুলিশ কর্মীদের নিরলস প্রচেষ্টার কারণে, সম্প্রতি রাজ্যে সন্ত্রাসী কার্যকলাপের সংখ্যা উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পেয়েছে।”

রাজনাথ বলেন, “পাকিস্তান ক্রমাগতভাবে ভারতকে রক্তাক্ত করার মাধ্যমে দেশের শান্তি বিঘ্নিত করার চেষ্টা করে। কিন্তু, আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী এই দেশের জন্য এমন একটি প্রতিরক্ষামূলক ঢাল, যখনই কেউ এটি ভাঙার চেষ্টা করে, আদতে নিজেকে রক্তাক্ত করে। আমাদের জাতির প্রতি আমার অগাধ বিশ্বাস রয়েছে। আমাদের বাহিনী সবসময় যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে প্রস্তুত থাকে।”

এর আগে সেনাবাহিনীতে নিয়োগ নিয়ে বার্তা দিলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। বিহার থেকে উত্তরপ্রদেশ হয়ে তেলঙ্গনা— কেন্দ্রের ‘অগ্নিপথ’ প্রকল্পের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে উত্তাল সারা দেশ। তার মধ্যেই এক টুইটে তিনি জানান, দেশের যুবকদের জন্য সুবর্ণ সুযোগ এনেছে অগ্নিপথ। তাঁদের হাতে রয়েছে দেশের সেবা করার বড় সুযোগ।

তিনি আরও লিখেন, “তরুণদের ভবিষ্যতের দিকে তাকিয়ে সংবেদনশীল সিদ্ধান্তের জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে হৃদয় থেকে ধন্যবাদ। আমি তরুণদের কাছে আবেদন জানাচ্ছি, কয়েক দিনের মধ্যেই সেনাবাহিনীতে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হতে যাচ্ছে। এর জন্য তারা প্রস্তুতি শুরু করুক।”

প্রসঙ্গত, অগ্নিপথ প্রকল্পের ঘোষণা করেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। এই প্রকল্পে সাড়ে ১৭ থেকে ২১ বছরের তরুণ-তরুণীরা চার বছরের জন্য মাসিক ৩০-৪৫ হাজার টাকার চুক্তির ভিত্তিতে সশস্ত্র বাহিনীর তিন শাখায় (স্থল, নৌ এবং বায়ুসেনা) যোগ দিতে পারবেন। তাঁদের বলা হবে ‘অগ্নিবীর’। সেনায় শূন্যপদ ও যোগ্যতার ভিত্তিতে চতুর্থ বছরের শেষে সেই ব্যাচের সর্বাধিক ২৫ শতাংশ অগ্নিবীরকে সেনায় অন্তর্ভুক্ত করা হবে। বাকিদের ১১-১২ লক্ষ টাকা হাতে দিয়ে পাঠানো হবে অবসরে। কোনও পেনশন থাকবে না। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক