০৮:২৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বিশ্ব শিক্ষার কেন্দ্র হতে পারে ভারত: মোদী

জাতীয় শিক্ষা নীতির পিছনে মূল লক্ষ্য হল শিক্ষাকে সংকীর্ণ চিন্তা প্রক্রিয়ার সীমা থেকে বের করে আনা এবং ২১ শতকের আধুনিক ধারণার সঙ্গে মিলিয়ে দেওয়া। বৃহস্পতিবার, বারাণসীতে একটি তিন দিনের সেমিনারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এমনটাই বলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এই সেমিনারে ৩০০ জনেরও বেশি শিক্ষাবিদ জাতীয় শিক্ষা নীতি বাস্তবায়নের বিষয়ে আলোচনা করেন।

অখিল ভারতীয় শিক্ষা সমাগমে ভাষণ দেওয়ার সময় ভারত সরকারের সুপ্রিমো বলেন, “আমাদের শুধু ডিগ্রি দিয়ে যুবদের প্রস্তুত করলেই হবে না, এ তো অপরিহার্য। পাশাপাশি আমাদের শিক্ষা নীতিকেও জোরদার করতে হবে যাতে তা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য উল্লেখযোগ্য মানবসম্পদ তৈরি করতে পারে,”

এদিনই, প্রধানমন্ত্রী অক্ষয় পাত্র মিড-ডে মিল রান্নাঘরের উদ্বোধন করেন, যাতে এক লক্ষ পড়ুয়ার খাবার তৈরি করা যাবে। উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির জয়ের পর এটিই বারাণসী নির্বাচনী এলাকায় মোদীর প্রথম সফর।

মোদী বলেন, “নতুন জাতীয় শিক্ষা নীতির জন্য দেশের শিক্ষাখাতে একটি বড় পরিকাঠামো সংস্কারের কাজও করা হয়েছে। শিক্ষা নীতি আঞ্চলিক ভাষায় শিক্ষার পথ প্রশস্ত করছে। সংস্কৃতের মতো প্রাচীন ভারতীয় ভাষাগুলোকেও এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।”

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন এবং বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগিতায় শিক্ষা মন্ত্রক দ্বারা আয়োজিত এই সেমিনারে সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩০০ জনেরও বেশি উপাচার্য এবং পরিচালক, শিক্ষাবিদ, নীতিনির্ধারক জাতীয় শিক্ষানীতি কীভাবে বাস্তবায়ন করা যায় তা নিয়ে আলোচনা করার জন্য জড়ো হন।

উত্তর প্রদেশের রাজ্যপাল আনন্দীবেন প্যাটেল, মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ, কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধানও এই সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

 

ট্যাগ:

বিশ্ব শিক্ষার কেন্দ্র হতে পারে ভারত: মোদী

প্রকাশ: ১২:২৬:৩৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ জুলাই ২০২২

জাতীয় শিক্ষা নীতির পিছনে মূল লক্ষ্য হল শিক্ষাকে সংকীর্ণ চিন্তা প্রক্রিয়ার সীমা থেকে বের করে আনা এবং ২১ শতকের আধুনিক ধারণার সঙ্গে মিলিয়ে দেওয়া। বৃহস্পতিবার, বারাণসীতে একটি তিন দিনের সেমিনারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এমনটাই বলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এই সেমিনারে ৩০০ জনেরও বেশি শিক্ষাবিদ জাতীয় শিক্ষা নীতি বাস্তবায়নের বিষয়ে আলোচনা করেন।

অখিল ভারতীয় শিক্ষা সমাগমে ভাষণ দেওয়ার সময় ভারত সরকারের সুপ্রিমো বলেন, “আমাদের শুধু ডিগ্রি দিয়ে যুবদের প্রস্তুত করলেই হবে না, এ তো অপরিহার্য। পাশাপাশি আমাদের শিক্ষা নীতিকেও জোরদার করতে হবে যাতে তা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য উল্লেখযোগ্য মানবসম্পদ তৈরি করতে পারে,”

এদিনই, প্রধানমন্ত্রী অক্ষয় পাত্র মিড-ডে মিল রান্নাঘরের উদ্বোধন করেন, যাতে এক লক্ষ পড়ুয়ার খাবার তৈরি করা যাবে। উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির জয়ের পর এটিই বারাণসী নির্বাচনী এলাকায় মোদীর প্রথম সফর।

মোদী বলেন, “নতুন জাতীয় শিক্ষা নীতির জন্য দেশের শিক্ষাখাতে একটি বড় পরিকাঠামো সংস্কারের কাজও করা হয়েছে। শিক্ষা নীতি আঞ্চলিক ভাষায় শিক্ষার পথ প্রশস্ত করছে। সংস্কৃতের মতো প্রাচীন ভারতীয় ভাষাগুলোকেও এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।”

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন এবং বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগিতায় শিক্ষা মন্ত্রক দ্বারা আয়োজিত এই সেমিনারে সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩০০ জনেরও বেশি উপাচার্য এবং পরিচালক, শিক্ষাবিদ, নীতিনির্ধারক জাতীয় শিক্ষানীতি কীভাবে বাস্তবায়ন করা যায় তা নিয়ে আলোচনা করার জন্য জড়ো হন।

উত্তর প্রদেশের রাজ্যপাল আনন্দীবেন প্যাটেল, মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ, কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধানও এই সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক