০৮:৫২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সিপিইসি নিয়ে পাক-চীনকে একহাত ভারতের

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পাক অধিকৃত কাশ্মীর যে ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ, তা রবিবারই নতুন করে জানিয়ে দিয়েছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। এবার এই ভূখণ্ডে কোটি কোটি ডলার ব্যয়ে নির্মীয়মাণ চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডর তথা সিপিইসি-তে তৃতীয় কোনও দেশকে অন্তর্ভুক্ত করার প্রয়াসের তীব্র নিন্দা করল বিদেশমন্ত্রক।

মঙ্গলবার বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি বলেন, “ওই করিডরে যা হচ্ছে তা একেবারেই বেআইনি, অবৈধ ও অগ্রহণযোগ্য। ভারত এর বিরুদ্ধে যথাযোগ্য পদক্ষেপ করবে।” তিনি আরও বলেন, “আমরা এমন রিপোর্ট পেয়েছি, যেখানে বলা হয়েছে তথাকথিত সিপিইসি প্রকল্পে তৃতীয় দেশকে আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে। এই ধরনের কার্যকলাপ সরাসরি ভারতের সার্বভৌমত্ব ও আঞ্চলিক অখণ্ডতায় প্রভাব ফেলে।”

উল্লেখ্য, ভারতের তীব্র বিরোধিতা সত্ত্বেও পাক অধিকৃত কাশ্মীরের উপর দিয়ে অর্থনৈতিক করিডর বানাচ্ছে চীন। করিডর তাঁদের সঙ্গে পাকিস্তানের সম্পর্ক আরও দৃঢ় করবে বলে মন্তব্য করতে দেখা গিয়েছে চিনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংকে। ২০১৩ সাল থেকে এই প্রকল্পের সূচনা হয়। পাকিস্তানের রাস্তা, রেলপথ ও শক্তি পরিবহন পরিকাঠামো গড়ে তোলাই এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য বলে জানিয়েছে বেজিং। ভারত প্রথম থেকেই এর প্রতিবাদ জানিয়ে এসেছে।

গত রবিবার ২৩তম কার্গিল বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং জানিয়ে দিয়েছেন, পাক অধিকৃত কাশ্মীর ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ আগেও ছিল এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। তিনি পরিষ্কার করে দেন, সংসদে একটি রেজোলিউশন নেওয়া হয়েছে পাক অধিকৃত কাশ্মীর নিয়ে। রাজনাথ বলেন, “বাবা অমরনাথ ভারতে এবং নিয়ন্ত্রণরেখার ওপারে থাকবে মা শারদা, এটা মেনে নেওয়া সম্ভব নয়।”

উল্লেখ্য, অমরনাথে রয়েছে শিবের মন্দির। অন্যদিকে মা শারদার মন্দির হল সরস্বতীর মন্দির, যা নিয়ন্ত্রণরেখার ওপারে অবস্থিত। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

সিপিইসি নিয়ে পাক-চীনকে একহাত ভারতের

প্রকাশ: ০২:০৮:১২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ জুলাই ২০২২

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পাক অধিকৃত কাশ্মীর যে ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ, তা রবিবারই নতুন করে জানিয়ে দিয়েছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। এবার এই ভূখণ্ডে কোটি কোটি ডলার ব্যয়ে নির্মীয়মাণ চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডর তথা সিপিইসি-তে তৃতীয় কোনও দেশকে অন্তর্ভুক্ত করার প্রয়াসের তীব্র নিন্দা করল বিদেশমন্ত্রক।

মঙ্গলবার বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি বলেন, “ওই করিডরে যা হচ্ছে তা একেবারেই বেআইনি, অবৈধ ও অগ্রহণযোগ্য। ভারত এর বিরুদ্ধে যথাযোগ্য পদক্ষেপ করবে।” তিনি আরও বলেন, “আমরা এমন রিপোর্ট পেয়েছি, যেখানে বলা হয়েছে তথাকথিত সিপিইসি প্রকল্পে তৃতীয় দেশকে আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে। এই ধরনের কার্যকলাপ সরাসরি ভারতের সার্বভৌমত্ব ও আঞ্চলিক অখণ্ডতায় প্রভাব ফেলে।”

উল্লেখ্য, ভারতের তীব্র বিরোধিতা সত্ত্বেও পাক অধিকৃত কাশ্মীরের উপর দিয়ে অর্থনৈতিক করিডর বানাচ্ছে চীন। করিডর তাঁদের সঙ্গে পাকিস্তানের সম্পর্ক আরও দৃঢ় করবে বলে মন্তব্য করতে দেখা গিয়েছে চিনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংকে। ২০১৩ সাল থেকে এই প্রকল্পের সূচনা হয়। পাকিস্তানের রাস্তা, রেলপথ ও শক্তি পরিবহন পরিকাঠামো গড়ে তোলাই এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য বলে জানিয়েছে বেজিং। ভারত প্রথম থেকেই এর প্রতিবাদ জানিয়ে এসেছে।

গত রবিবার ২৩তম কার্গিল বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং জানিয়ে দিয়েছেন, পাক অধিকৃত কাশ্মীর ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ আগেও ছিল এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। তিনি পরিষ্কার করে দেন, সংসদে একটি রেজোলিউশন নেওয়া হয়েছে পাক অধিকৃত কাশ্মীর নিয়ে। রাজনাথ বলেন, “বাবা অমরনাথ ভারতে এবং নিয়ন্ত্রণরেখার ওপারে থাকবে মা শারদা, এটা মেনে নেওয়া সম্ভব নয়।”

উল্লেখ্য, অমরনাথে রয়েছে শিবের মন্দির। অন্যদিকে মা শারদার মন্দির হল সরস্বতীর মন্দির, যা নিয়ন্ত্রণরেখার ওপারে অবস্থিত। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক