০৯:২০ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

জ্বালানি খাতে রাশিয়ার সঙ্গে অপার সম্ভাবনা: মোদী

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ ভারত সহ গোটা দেশে কাঁচামালের যোগানে বড় প্রভাব পড়ছে। এবার এই দ্বন্দ্ব মেটাতে সবরকম শান্তি প্রক্রিয়ার পক্ষে সওয়াল করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ভ্লাদিভোস্তকে ইস্টার্ন ইকোনমিক ফোরামের একটি প্লেনারি সেশন হয়েছে। সেখানেই ভার্চুয়াল মাধ্যমে অংশ নিয়েছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনও এই অনুষ্ঠানে ছিলেন। মোদী জানিয়েছেন, ইউক্রেন সংকট ও কোভিড পরিস্থিতির জেরে খাদ্যশস্য, সার, জ্বালানির সরবরাহের ক্ষেত্রে বড় ঘাটতি থেকে গিয়েছে। এর জেরে উন্নয়নশীল দেশগুলিতে প্রভাব পড়ছে।

এদিকে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের একেবারে প্রথম অবস্থা থেকে মোদী বারবার শান্তি স্থাপনের ব্যাপারে আবেদন জানিয়েছিলেন। আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা মেটানোর পক্ষে সওয়াল করেছিলেন তিনি। রাশিয়া ও ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের মধ্যে যাতে সরাসরি কথা হয় সে ব্যাপারেও আবেদন জানিয়েছিলেন তিনি।

এদিন হিন্দিতেই ভাষণ দেন মোদী। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক সাপ্লাই চেনে বড় প্রভাব ফেলেছে ইউক্রেন সংকট ও কোভিড পরিস্থিতি। পাশাপাশি তিনি বলেন, ইউক্রেন সংকটের একেবারে প্রথম থেকে আমরা গণতন্ত্রের পথ গ্রহণ ও আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা মেটানোর কথা বলে আসছি। এই দ্বন্দ্ব মেটাতে শান্তির পথ অবলম্বন করার কথাও আমরা বলেছি। সার ও দানা শস্যের আমদানির ক্ষেত্রে নিরাপদ পথকেও আমরা স্বাগত জানিয়েছি।

বসুধৈব কুটুম্বকমের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, গোটা বিশ্বকে একটি পরিবার হিসাবে আমরা দেখি। ইস্টার্ন ইকোনমিক ফোরাম ২০১৯ এর কথাও স্মরণ করেন তিনি। সেই সময় উল্লেখিত অ্যাক্ট ফার ইস্ট পলিসির কথাও তুলে ধরেন তিনি।

মোদী জানিয়েছেন, ভারতের স্টিল কারখানা কোক কয়লা সরবরাহ করে রাশিয়া এই শিল্পের অঙ্গীভূত হয়েছে। পাশাপাশি ভারতের মেধা গোটা বিশ্বকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সহায়তা করছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

জ্বালানি খাতে রাশিয়ার সঙ্গে অপার সম্ভাবনা: মোদী

প্রকাশ: ০৭:৪১:৪০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ ভারত সহ গোটা দেশে কাঁচামালের যোগানে বড় প্রভাব পড়ছে। এবার এই দ্বন্দ্ব মেটাতে সবরকম শান্তি প্রক্রিয়ার পক্ষে সওয়াল করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ভ্লাদিভোস্তকে ইস্টার্ন ইকোনমিক ফোরামের একটি প্লেনারি সেশন হয়েছে। সেখানেই ভার্চুয়াল মাধ্যমে অংশ নিয়েছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনও এই অনুষ্ঠানে ছিলেন। মোদী জানিয়েছেন, ইউক্রেন সংকট ও কোভিড পরিস্থিতির জেরে খাদ্যশস্য, সার, জ্বালানির সরবরাহের ক্ষেত্রে বড় ঘাটতি থেকে গিয়েছে। এর জেরে উন্নয়নশীল দেশগুলিতে প্রভাব পড়ছে।

এদিকে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের একেবারে প্রথম অবস্থা থেকে মোদী বারবার শান্তি স্থাপনের ব্যাপারে আবেদন জানিয়েছিলেন। আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা মেটানোর পক্ষে সওয়াল করেছিলেন তিনি। রাশিয়া ও ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের মধ্যে যাতে সরাসরি কথা হয় সে ব্যাপারেও আবেদন জানিয়েছিলেন তিনি।

এদিন হিন্দিতেই ভাষণ দেন মোদী। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক সাপ্লাই চেনে বড় প্রভাব ফেলেছে ইউক্রেন সংকট ও কোভিড পরিস্থিতি। পাশাপাশি তিনি বলেন, ইউক্রেন সংকটের একেবারে প্রথম থেকে আমরা গণতন্ত্রের পথ গ্রহণ ও আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা মেটানোর কথা বলে আসছি। এই দ্বন্দ্ব মেটাতে শান্তির পথ অবলম্বন করার কথাও আমরা বলেছি। সার ও দানা শস্যের আমদানির ক্ষেত্রে নিরাপদ পথকেও আমরা স্বাগত জানিয়েছি।

বসুধৈব কুটুম্বকমের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, গোটা বিশ্বকে একটি পরিবার হিসাবে আমরা দেখি। ইস্টার্ন ইকোনমিক ফোরাম ২০১৯ এর কথাও স্মরণ করেন তিনি। সেই সময় উল্লেখিত অ্যাক্ট ফার ইস্ট পলিসির কথাও তুলে ধরেন তিনি।

মোদী জানিয়েছেন, ভারতের স্টিল কারখানা কোক কয়লা সরবরাহ করে রাশিয়া এই শিল্পের অঙ্গীভূত হয়েছে। পাশাপাশি ভারতের মেধা গোটা বিশ্বকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সহায়তা করছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক