০২:৪৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

আগামী বছর ভারতে হবে জি-২০ সম্মেলন

চলতি বছর ডিসেম্বরে প্রথমবারের মত জি-২০ এর সভাপতিত্ব গ্রহণ করতে যাচ্ছে ভারত। ১ ডিসেম্বর ২০২২ থেকে ৩০ নভেম্বর ২০২৩ পর্যন্ত এক বছরের জন্য গ্রুপ অফ টুয়েন্টি (জি-২০) এর সভাপতিত্ব গ্রহণ করবে দেশটি। ভারত এই বছরের ডিসেম্বরে শুরু করে সারা দেশে ২০০ টিরও বেশি প্রস্তুতিমূলক এবং অন্যান্য বৈঠকের আয়োজন করবে বলে আশা করা হচ্ছে বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এর মধ্যে প্রথম বৈঠক্ এ বছরের ডিসেম্বরেই আয়োজন করা হবে।

রাজ্য/সরকার প্রধানদের পর্যায়ে জি-২০ নেতাদের শীর্ষ সম্মেলন যথাক্রমে আগামী ৯ এবং ১০ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে নয়া দিল্লিতে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

দ্য গ্রুপ অফ টুয়েন্টি বিশ্বের প্রধান উন্নত ও উন্নয়নশীল অর্থনীতির একটি আন্তঃসরকারি ফোরাম। এটি ১৯টি দেশ নিয়ে গঠিত – আর্জেন্টিনা, অস্ট্রেলিয়া, ব্রাজিল, কানাডা, চীন, ফ্রান্স, জার্মানি, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, ইতালি, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, মেক্সিকো, রাশিয়া, সৌদি আরব, দক্ষিণ আফ্রিকা, তুরস্ক, যুক্তরাজ্য এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র – এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)।

সমষ্টিগতভাবে, জি-২০ বিশ্বব্যাপী জিডিপির ৮৫%, আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের ৭৫% এবং বিশ্বের জনসংখ্যার দুই-তৃতীয়াংশ, এটিকে আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক সহযোগিতার প্রধান ফোরাম করে তুলেছে।

ভারত বর্তমানে জি-২০ ট্রোইকা এর অংশ, যা বর্তমান, পূর্ববর্তী এবং আগত জি-২০ প্রেসিডেন্সিগুলির অন্তর্ভুক্ত এবং এতে ইন্দোনেশিয়া, ইতালি এবং ভারত অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এর সভাপতিত্বের সময়, ট্রোইকা ভারত, ইন্দোনেশিয়া এবং ব্রাজিল অন্তর্ভুক্ত করবে। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এই প্রথমবারের মতো তিনটি উন্নয়নশীল দেশ এবং উদীয়মান অর্থনীতি নিয়ে ত্রয়িকা গঠিত হবে।

জি-২০ প্রেসিডেন্সির সভা এবং শীর্ষ সম্মেলনে অতিথি দেশ এবং আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলিকে আমন্ত্রণ জানানোর একটি ঐতিহ্য রয়েছে। জাতিসংঘ, আইএমএফ, বিশ্বব্যাংক, ডব্লিউএইচও, ডব্লিউটিও এবং আইএলও-এর মতো নিয়মিত আন্তর্জাতিক সংস্থার পাশাপাশি এবং আঞ্চলিক সংস্থার চেয়ার যেমন আসিয়ান, ভারত, তার সভাপতিত্বকালে, বাংলাদেশ, মিশর, মরিশাস, নেদারল্যান্ডস, নাইজেরিয়া, ওমানকে আমন্ত্রণ জানাবে। অতিথি দেশ হিসেবে থাকবে সিঙ্গাপুর, স্পেন ও সংযুক্ত আরব আমিরাত।

ভারত আন্তর্জাতিক সোলার অ্যালায়েন্স, কোয়ালিশন ফর ডিজাস্টার রেসিলিয়েন্ট ইনফ্রাস্ট্রাকচার এবং এশীয় উন্নয়ন ব্যাঙ্ককে অতিথি আন্তর্জাতিক সংস্থা হিসেবে আমন্ত্রণ জানাবে।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ভারতের জি-২০ অগ্রাধিকারগুলি দৃঢ় করার পাশাপাশি, চলমান অন্তর্ভুক্তিমূলক, ন্যায়সঙ্গত এবং টেকসই বৃদ্ধি নিয়ে আলোচনা বা পরিবেশের জন্য জীবনধারা, নারীর ক্ষমতায়ন, ডিজিটাল পাবলিক অবকাঠামো এবং স্বাস্থ্য, কৃষি, শিক্ষা এবং পর্যটন, জলবায়ুর মতো ক্ষেত্রগুলিতে প্রযুক্তি-সক্ষম উন্নয়নের পাশাপাশি অর্থায়ন, বৈশ্বিক খাদ্য নিরাপত্তা, জ্বালানি নিরাপত্তা, অর্থনৈতিক অপরাধের বিরুদ্ধে লড়াই এবং বহুপাক্ষিক সংস্কার, এই সব কছু ঘিরেই আবর্তিত এই সম্মেলন। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

আগামী বছর ভারতে হবে জি-২০ সম্মেলন

প্রকাশ: ০৯:৫৩:০৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২

চলতি বছর ডিসেম্বরে প্রথমবারের মত জি-২০ এর সভাপতিত্ব গ্রহণ করতে যাচ্ছে ভারত। ১ ডিসেম্বর ২০২২ থেকে ৩০ নভেম্বর ২০২৩ পর্যন্ত এক বছরের জন্য গ্রুপ অফ টুয়েন্টি (জি-২০) এর সভাপতিত্ব গ্রহণ করবে দেশটি। ভারত এই বছরের ডিসেম্বরে শুরু করে সারা দেশে ২০০ টিরও বেশি প্রস্তুতিমূলক এবং অন্যান্য বৈঠকের আয়োজন করবে বলে আশা করা হচ্ছে বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এর মধ্যে প্রথম বৈঠক্ এ বছরের ডিসেম্বরেই আয়োজন করা হবে।

রাজ্য/সরকার প্রধানদের পর্যায়ে জি-২০ নেতাদের শীর্ষ সম্মেলন যথাক্রমে আগামী ৯ এবং ১০ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে নয়া দিল্লিতে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

দ্য গ্রুপ অফ টুয়েন্টি বিশ্বের প্রধান উন্নত ও উন্নয়নশীল অর্থনীতির একটি আন্তঃসরকারি ফোরাম। এটি ১৯টি দেশ নিয়ে গঠিত – আর্জেন্টিনা, অস্ট্রেলিয়া, ব্রাজিল, কানাডা, চীন, ফ্রান্স, জার্মানি, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, ইতালি, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, মেক্সিকো, রাশিয়া, সৌদি আরব, দক্ষিণ আফ্রিকা, তুরস্ক, যুক্তরাজ্য এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র – এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)।

সমষ্টিগতভাবে, জি-২০ বিশ্বব্যাপী জিডিপির ৮৫%, আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের ৭৫% এবং বিশ্বের জনসংখ্যার দুই-তৃতীয়াংশ, এটিকে আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক সহযোগিতার প্রধান ফোরাম করে তুলেছে।

ভারত বর্তমানে জি-২০ ট্রোইকা এর অংশ, যা বর্তমান, পূর্ববর্তী এবং আগত জি-২০ প্রেসিডেন্সিগুলির অন্তর্ভুক্ত এবং এতে ইন্দোনেশিয়া, ইতালি এবং ভারত অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এর সভাপতিত্বের সময়, ট্রোইকা ভারত, ইন্দোনেশিয়া এবং ব্রাজিল অন্তর্ভুক্ত করবে। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এই প্রথমবারের মতো তিনটি উন্নয়নশীল দেশ এবং উদীয়মান অর্থনীতি নিয়ে ত্রয়িকা গঠিত হবে।

জি-২০ প্রেসিডেন্সির সভা এবং শীর্ষ সম্মেলনে অতিথি দেশ এবং আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলিকে আমন্ত্রণ জানানোর একটি ঐতিহ্য রয়েছে। জাতিসংঘ, আইএমএফ, বিশ্বব্যাংক, ডব্লিউএইচও, ডব্লিউটিও এবং আইএলও-এর মতো নিয়মিত আন্তর্জাতিক সংস্থার পাশাপাশি এবং আঞ্চলিক সংস্থার চেয়ার যেমন আসিয়ান, ভারত, তার সভাপতিত্বকালে, বাংলাদেশ, মিশর, মরিশাস, নেদারল্যান্ডস, নাইজেরিয়া, ওমানকে আমন্ত্রণ জানাবে। অতিথি দেশ হিসেবে থাকবে সিঙ্গাপুর, স্পেন ও সংযুক্ত আরব আমিরাত।

ভারত আন্তর্জাতিক সোলার অ্যালায়েন্স, কোয়ালিশন ফর ডিজাস্টার রেসিলিয়েন্ট ইনফ্রাস্ট্রাকচার এবং এশীয় উন্নয়ন ব্যাঙ্ককে অতিথি আন্তর্জাতিক সংস্থা হিসেবে আমন্ত্রণ জানাবে।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ভারতের জি-২০ অগ্রাধিকারগুলি দৃঢ় করার পাশাপাশি, চলমান অন্তর্ভুক্তিমূলক, ন্যায়সঙ্গত এবং টেকসই বৃদ্ধি নিয়ে আলোচনা বা পরিবেশের জন্য জীবনধারা, নারীর ক্ষমতায়ন, ডিজিটাল পাবলিক অবকাঠামো এবং স্বাস্থ্য, কৃষি, শিক্ষা এবং পর্যটন, জলবায়ুর মতো ক্ষেত্রগুলিতে প্রযুক্তি-সক্ষম উন্নয়নের পাশাপাশি অর্থায়ন, বৈশ্বিক খাদ্য নিরাপত্তা, জ্বালানি নিরাপত্তা, অর্থনৈতিক অপরাধের বিরুদ্ধে লড়াই এবং বহুপাক্ষিক সংস্কার, এই সব কছু ঘিরেই আবর্তিত এই সম্মেলন। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক