০৮:৫৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সেমিকন্ডাক্টর উৎপাদনে গুজরাটের চমক

ইলেক্ট্রনিক্স সামগ্রীর ক্ষেত্রে ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ একটি উপাদান সেমিকন্ডাক্টর, যা সাধারণত বাইরের দেশ থেকেই ভারতে আমদানি করে সংস্থাগুলো। তবে সময়ের সাথে ক্রমশ পাল্টাচ্ছে পরিস্থিতি। তাইওয়ানের সংস্থা ফক্সকনের সাথে গাঁটছাড়া বেঁধে গুজরাতে সেমিকন্ডাক্টর উৎপাদন কেন্দ্র তৈরি করতে চলেছে ভারতের বেদান্ত গ্রুপ।

এই সংস্থাটি গুজরাত থেকে সেমিকন্ডাক্টর প্ল্যান্ট নির্মাণের জন্য মূলধন ব্যয়, সস্তা বিদ্যুৎ সহ আর্থিক এবং অ-আর্থিক ভর্তুকি পেয়েছে বলে জানা গিয়েছে। বেদান্তর তরফে ৯৯ বছরের লিজে বিনামূল্যে ১,০০০ একর জমি চাওয়া হয়েছিল। পাশাপাশি জল ও বিদ্যুতের জন্য নির্দিষ্ট দাম চেয়েছিল তারা। গুজরাত ছাড়াও এই প্রকল্পের জন্য দৌড়ে ছিল কর্ণাটক, মহারাষ্ট্র এবং তেলেঙ্গানার মতো রাজ্যগুলো।

রয়টার্স এর রিপোর্ট অনুসারে, ভারতীয় বহুজাতিক মাইনিং সংস্থা বেদান্ত এবং তাইওয়ানের ইলেক্ট্রনিক্স পণ্য প্রস্তুতকারী ফক্সকন যৌথ উদ্যোগে গুজরাতেই এই মেগা প্রজেক্ট স্থাপন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই প্লান্টে ২০ বিলিয়ন ডলার (প্রায় ১,৫৯,০৭০ কোটি টাকা) বিনিয়োগ করা হবে বলে সূত্রের খবর।

গুজরাতের আহমেদাবাদে ডিসপ্লে ইউনিট সহ এই সেমিকন্ডাক্টর প্লান্ট গড়ে তুলবে বেদান্ত। সংস্থার পক্ষ থেকে ৯৯ বছরের লিজে বিনামূল্যে ১,০০০ একর জমি ও ২০ বছরের জন্য স্থায়ী দামে বিদ্যুৎ ও জল সরবরাহের প্রস্তাব রাখা হয়েছিল। সূত্রের খবর, এই শর্ত পূরণ করেছে গুজরাত সরকার। তালিকায় এগিয়ে থাকা মহারাষ্ট্রকে পিছনে ফেলেছে তারা।

আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই দুই পক্ষের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারকের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করা হবে আশা করা হচ্ছে। যেখানে গুজরাত সরকারের আধিকারিক এবং বেদান্ত গ্রুপের কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন।

কেন্দ্রের অনুমান, ভারতের সেমিকন্ডাক্টর বাজার ২০২০ সালে ১৫ বিলিয়ন ডলার থেকে ২০২৬ সালের মধ্যে ৬৩ বিলিয়ন ডলারে পৌঁছে যাবে। এই মুহূর্তে বিশ্বের বেশিরভাগ চিপ সরবরাহ তাইওয়ানের মতো কয়েকটি দেশে সীমাবদ্ধ। যেখানে ভারত এখনও সক্রিয় ভাবে অংশগ্রহণ করতে পারেনি। তবে কেন্দ্রের আশা, আগামী দিনে ভারতে ইলেক্ট্রনিক্স উৎপাদনে নতুন যুগের সূচনা হতে চলেছে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

সেমিকন্ডাক্টর উৎপাদনে গুজরাটের চমক

প্রকাশ: ০৯:৫৬:৫৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২

ইলেক্ট্রনিক্স সামগ্রীর ক্ষেত্রে ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ একটি উপাদান সেমিকন্ডাক্টর, যা সাধারণত বাইরের দেশ থেকেই ভারতে আমদানি করে সংস্থাগুলো। তবে সময়ের সাথে ক্রমশ পাল্টাচ্ছে পরিস্থিতি। তাইওয়ানের সংস্থা ফক্সকনের সাথে গাঁটছাড়া বেঁধে গুজরাতে সেমিকন্ডাক্টর উৎপাদন কেন্দ্র তৈরি করতে চলেছে ভারতের বেদান্ত গ্রুপ।

এই সংস্থাটি গুজরাত থেকে সেমিকন্ডাক্টর প্ল্যান্ট নির্মাণের জন্য মূলধন ব্যয়, সস্তা বিদ্যুৎ সহ আর্থিক এবং অ-আর্থিক ভর্তুকি পেয়েছে বলে জানা গিয়েছে। বেদান্তর তরফে ৯৯ বছরের লিজে বিনামূল্যে ১,০০০ একর জমি চাওয়া হয়েছিল। পাশাপাশি জল ও বিদ্যুতের জন্য নির্দিষ্ট দাম চেয়েছিল তারা। গুজরাত ছাড়াও এই প্রকল্পের জন্য দৌড়ে ছিল কর্ণাটক, মহারাষ্ট্র এবং তেলেঙ্গানার মতো রাজ্যগুলো।

রয়টার্স এর রিপোর্ট অনুসারে, ভারতীয় বহুজাতিক মাইনিং সংস্থা বেদান্ত এবং তাইওয়ানের ইলেক্ট্রনিক্স পণ্য প্রস্তুতকারী ফক্সকন যৌথ উদ্যোগে গুজরাতেই এই মেগা প্রজেক্ট স্থাপন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই প্লান্টে ২০ বিলিয়ন ডলার (প্রায় ১,৫৯,০৭০ কোটি টাকা) বিনিয়োগ করা হবে বলে সূত্রের খবর।

গুজরাতের আহমেদাবাদে ডিসপ্লে ইউনিট সহ এই সেমিকন্ডাক্টর প্লান্ট গড়ে তুলবে বেদান্ত। সংস্থার পক্ষ থেকে ৯৯ বছরের লিজে বিনামূল্যে ১,০০০ একর জমি ও ২০ বছরের জন্য স্থায়ী দামে বিদ্যুৎ ও জল সরবরাহের প্রস্তাব রাখা হয়েছিল। সূত্রের খবর, এই শর্ত পূরণ করেছে গুজরাত সরকার। তালিকায় এগিয়ে থাকা মহারাষ্ট্রকে পিছনে ফেলেছে তারা।

আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই দুই পক্ষের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারকের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করা হবে আশা করা হচ্ছে। যেখানে গুজরাত সরকারের আধিকারিক এবং বেদান্ত গ্রুপের কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন।

কেন্দ্রের অনুমান, ভারতের সেমিকন্ডাক্টর বাজার ২০২০ সালে ১৫ বিলিয়ন ডলার থেকে ২০২৬ সালের মধ্যে ৬৩ বিলিয়ন ডলারে পৌঁছে যাবে। এই মুহূর্তে বিশ্বের বেশিরভাগ চিপ সরবরাহ তাইওয়ানের মতো কয়েকটি দেশে সীমাবদ্ধ। যেখানে ভারত এখনও সক্রিয় ভাবে অংশগ্রহণ করতে পারেনি। তবে কেন্দ্রের আশা, আগামী দিনে ভারতে ইলেক্ট্রনিক্স উৎপাদনে নতুন যুগের সূচনা হতে চলেছে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক