০১:০১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জাতীয় লজিস্টিক নীতি কর্মসংস্থান বাড়াবে: মোদী

দেশে পণ্য পরিবহণের খরচ কমাতে শনিবার জাতীয় লজিস্টিক নীতি চালু করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মোদীর কথায়, ‘উন্নত ভারত গড়তে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ।’ তিনি এই নীতিটিকে ‘অনেক সমস্যার সমাধান’ বলে অভিহিত করেন। তিনি দাবি করেন, এই নীতি ‘আমাদের সমস্ত ব্যবস্থা’কে উন্নতির দিকে নিয়ে যাবে।

প্রধানমন্ত্রী মোদী শনিবার বলেন, ‘অমৃতকালের মধ্যে উন্নত ভারত গড়ার দিকে একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ করেছে সরকার। মেক ইন ইন্ডিয়া এবং স্বনির্ভর ভারতের প্রতিধ্বনি সর্বত্র। ভারত বড় মাত্রায় রফতানির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করছে। সেগুলো পূরণও করছে। ভারত একটি ম্যানুফ্যাকচারিং হাব হয়ে উঠছে। এমতাবস্থায় জাতীয় লজিস্টিক নীতি সব খাতে নতুন শক্তি সঞ্চার করবে।’

– প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় (পিএমও) অনুসারে, অন্যান্য উন্নত অর্থনীতির তুলনায় ভারতে লজিস্টিক খরচ বেশি হওয়ায় একটি জাতীয় নীতির প্রয়োজন হয়ে পড়েছিল।

– ঘরোয়া এবং রফতানি বাজারে ভারতীয় পণ্যের প্রতিযোগিতা বৃদ্ধি করার জন্য এই নীতি দেশের লজিস্টিক খরচ কমিয়ে দেবে। লজিস্টিক খরচ কমলে অর্থনীতির বিভিন্ন সেক্টরের উন্নতি হবে এবং সার্বিক ভাবে দক্ষতা বৃদ্ধি পাবে। এর ফলে ব্যবসায়ীরা উৎসাহিত হবেন।

– পিএমও-র বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে, এই নীতির ফলে ভারতীয় পণ্য আরও ভালো ভাবে প্রতিযোগিতায় উন্নত হবে। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি এবং কর্মসংস্থানের সুযোগ বাড়ানোর সম্ভব হবে।

পিএমও-র মতে, জাতীয় লজিস্টিক নীতি চালু করার ফলে পিএম গতিশক্তির পরিকল্পনা পূর্ণ হবে। আদতে মাল্টি-মোডাল সংযোগের জন্য জাতীয় মাস্টার প্ল্যান এই গতিশক্তি।

বর্তমানে ভারত নিজের জিডিপির ১৩ থেকে ১৫ শতাংশ খরচ করে পণ্য পরিবহণ খাতে। যেখানে জাপান এবং জার্মানির মতো দেশ তাদের জিডিপির মাত্র ৮ থেকে ৯ শতাংশই খরচ করে এই ক্ষেত্রে। ২০১৮ সালে ওয়ার্ল্ড লজিস্টিক ইনডেক্স-র তথ্য অনুযায়ী, পণ্য পরিবহণ খরচে ৪৮ তম স্থানে রয়েছে ভারত। যেখানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং চিন রয়েছে যথাক্রমে ১৪ এবং ২৬ নম্বর স্থানে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

জাতীয় লজিস্টিক নীতি কর্মসংস্থান বাড়াবে: মোদী

প্রকাশ: ১১:১৮:৫৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

দেশে পণ্য পরিবহণের খরচ কমাতে শনিবার জাতীয় লজিস্টিক নীতি চালু করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মোদীর কথায়, ‘উন্নত ভারত গড়তে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ।’ তিনি এই নীতিটিকে ‘অনেক সমস্যার সমাধান’ বলে অভিহিত করেন। তিনি দাবি করেন, এই নীতি ‘আমাদের সমস্ত ব্যবস্থা’কে উন্নতির দিকে নিয়ে যাবে।

প্রধানমন্ত্রী মোদী শনিবার বলেন, ‘অমৃতকালের মধ্যে উন্নত ভারত গড়ার দিকে একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ করেছে সরকার। মেক ইন ইন্ডিয়া এবং স্বনির্ভর ভারতের প্রতিধ্বনি সর্বত্র। ভারত বড় মাত্রায় রফতানির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করছে। সেগুলো পূরণও করছে। ভারত একটি ম্যানুফ্যাকচারিং হাব হয়ে উঠছে। এমতাবস্থায় জাতীয় লজিস্টিক নীতি সব খাতে নতুন শক্তি সঞ্চার করবে।’

– প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় (পিএমও) অনুসারে, অন্যান্য উন্নত অর্থনীতির তুলনায় ভারতে লজিস্টিক খরচ বেশি হওয়ায় একটি জাতীয় নীতির প্রয়োজন হয়ে পড়েছিল।

– ঘরোয়া এবং রফতানি বাজারে ভারতীয় পণ্যের প্রতিযোগিতা বৃদ্ধি করার জন্য এই নীতি দেশের লজিস্টিক খরচ কমিয়ে দেবে। লজিস্টিক খরচ কমলে অর্থনীতির বিভিন্ন সেক্টরের উন্নতি হবে এবং সার্বিক ভাবে দক্ষতা বৃদ্ধি পাবে। এর ফলে ব্যবসায়ীরা উৎসাহিত হবেন।

– পিএমও-র বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে, এই নীতির ফলে ভারতীয় পণ্য আরও ভালো ভাবে প্রতিযোগিতায় উন্নত হবে। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি এবং কর্মসংস্থানের সুযোগ বাড়ানোর সম্ভব হবে।

পিএমও-র মতে, জাতীয় লজিস্টিক নীতি চালু করার ফলে পিএম গতিশক্তির পরিকল্পনা পূর্ণ হবে। আদতে মাল্টি-মোডাল সংযোগের জন্য জাতীয় মাস্টার প্ল্যান এই গতিশক্তি।

বর্তমানে ভারত নিজের জিডিপির ১৩ থেকে ১৫ শতাংশ খরচ করে পণ্য পরিবহণ খাতে। যেখানে জাপান এবং জার্মানির মতো দেশ তাদের জিডিপির মাত্র ৮ থেকে ৯ শতাংশই খরচ করে এই ক্ষেত্রে। ২০১৮ সালে ওয়ার্ল্ড লজিস্টিক ইনডেক্স-র তথ্য অনুযায়ী, পণ্য পরিবহণ খরচে ৪৮ তম স্থানে রয়েছে ভারত। যেখানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং চিন রয়েছে যথাক্রমে ১৪ এবং ২৬ নম্বর স্থানে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক