০৯:৪১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বঙ্গোপসাগরে হলো জাপান-ভারত নৌমহড়া

এবছর পশ্চিমবঙ্গের উপকূলের বঙ্গোপসাগরে অনুষ্ঠিত হল জাপান ইন্ডিয়া মেরিটাইম এক্সারসাইজ এর ষষ্ঠ সংস্করণ। যেখানে দুটি ইন্দো-প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশের মধ্যে “বন্ধুত্বের সেতু” আরও মজবুত হলো। প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং তার জাপানি প্রতিপক্ষ ইয়াসুকাজু হামাদার সঙ্গে ২+২ ভারত-জাপান মন্ত্রী পর্যায়ের সংলাপের জন্য টোকিও সফরের কয়েকদিন পরই গত ১১ই সেপ্টেম্বর থেকে এই মহড়াটি অনুষ্ঠিত হয়।

এই মেরিটাইম এক্সারসাইজ দুটি পর্বে বিভক্ত ছিল যার একটি অংশ ছিল সমুদ্রে অনুশীলন এবং একটি বিশাখাপত্তনমে পোতাশ্রয়ে অনুশীলন। এই অনুশীলনে জাপানের প্রতিনিধিত্ব করেছিল দেশের দুটি মেরিটাইম সেলফ-ডিফেন্স ফোর্স শিপ- ইজুমো, একটি হেলিকপ্টার ক্যারিয়ার, এবং তাকানামি, একটি গাইডেড ধ্বংসকারী ক্ষেপণাস্ত্র।

ভারতীয় নৌবাহিনী জানিয়েছে, ‘ভারত, ইতিমধ্যে, তার দেশীয়ভাবে নির্মিত নৌ যুদ্ধজাহাজের তিনটি নিয়ে এসেছে, যার মধ্যে দুটি হল কদমাত এবং কাভারত্তিতে অ্যান্টি সাবমেরিন ওয়ারফেয়ার করভেট এবং সহ্যাদ্রিতে একটি বহুমুখী স্টিলথ ফ্রিগেট। এছাড়াও, গাইডেড মিসাইল ডেস্ট্রয়ার রণবিজয়, ফ্লিট ট্যাঙ্কার জ্যোতি, অফশোর প্যাট্রোল ভেসেল সুকন্যা, সাবমেরিন, মিগ ২৯কে ফাইটার এয়ারক্রাফ্ট, লং রেঞ্জ মেরিটাইম পেট্রোল এয়ারক্রাফ্ট এই মহড়ায় অংশ নিচ্ছে’।

জিম্যাক্স-এর ষষ্ঠ সংস্করণ শুধুমাত্র ভারত এবং জাপানের কোয়াড-এর সঙ্গে জড়িত থাকার কারণেই তাৎপর্যপূর্ণ নয়। এবছর এই মহড়া তার প্রথম সংস্করণের ১০ বছর পূর্ণ করেছে। ভারত ও জাপানের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপিত হওয়ার ৭০ বছর পূর্ণ হল ২০২২এ। এছাড়াও ভারত এবং জাপান সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে উভয় পক্ষের বিমান বাহিনী শীঘ্রই একটি ‘ভারত-জাপান ফাইটার এক্সারসাইজ’ পরিচালনা করবে যদিও তারা আরও জটিল এবং শক্তিশালী দ্বিপাক্ষিক মহড়ার জন্যে অবিরাম প্রচেষ্টা চালানোর পরিকল্পনা করছে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

বঙ্গোপসাগরে হলো জাপান-ভারত নৌমহড়া

প্রকাশ: ১১:২৯:০৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

এবছর পশ্চিমবঙ্গের উপকূলের বঙ্গোপসাগরে অনুষ্ঠিত হল জাপান ইন্ডিয়া মেরিটাইম এক্সারসাইজ এর ষষ্ঠ সংস্করণ। যেখানে দুটি ইন্দো-প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশের মধ্যে “বন্ধুত্বের সেতু” আরও মজবুত হলো। প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং তার জাপানি প্রতিপক্ষ ইয়াসুকাজু হামাদার সঙ্গে ২+২ ভারত-জাপান মন্ত্রী পর্যায়ের সংলাপের জন্য টোকিও সফরের কয়েকদিন পরই গত ১১ই সেপ্টেম্বর থেকে এই মহড়াটি অনুষ্ঠিত হয়।

এই মেরিটাইম এক্সারসাইজ দুটি পর্বে বিভক্ত ছিল যার একটি অংশ ছিল সমুদ্রে অনুশীলন এবং একটি বিশাখাপত্তনমে পোতাশ্রয়ে অনুশীলন। এই অনুশীলনে জাপানের প্রতিনিধিত্ব করেছিল দেশের দুটি মেরিটাইম সেলফ-ডিফেন্স ফোর্স শিপ- ইজুমো, একটি হেলিকপ্টার ক্যারিয়ার, এবং তাকানামি, একটি গাইডেড ধ্বংসকারী ক্ষেপণাস্ত্র।

ভারতীয় নৌবাহিনী জানিয়েছে, ‘ভারত, ইতিমধ্যে, তার দেশীয়ভাবে নির্মিত নৌ যুদ্ধজাহাজের তিনটি নিয়ে এসেছে, যার মধ্যে দুটি হল কদমাত এবং কাভারত্তিতে অ্যান্টি সাবমেরিন ওয়ারফেয়ার করভেট এবং সহ্যাদ্রিতে একটি বহুমুখী স্টিলথ ফ্রিগেট। এছাড়াও, গাইডেড মিসাইল ডেস্ট্রয়ার রণবিজয়, ফ্লিট ট্যাঙ্কার জ্যোতি, অফশোর প্যাট্রোল ভেসেল সুকন্যা, সাবমেরিন, মিগ ২৯কে ফাইটার এয়ারক্রাফ্ট, লং রেঞ্জ মেরিটাইম পেট্রোল এয়ারক্রাফ্ট এই মহড়ায় অংশ নিচ্ছে’।

জিম্যাক্স-এর ষষ্ঠ সংস্করণ শুধুমাত্র ভারত এবং জাপানের কোয়াড-এর সঙ্গে জড়িত থাকার কারণেই তাৎপর্যপূর্ণ নয়। এবছর এই মহড়া তার প্রথম সংস্করণের ১০ বছর পূর্ণ করেছে। ভারত ও জাপানের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপিত হওয়ার ৭০ বছর পূর্ণ হল ২০২২এ। এছাড়াও ভারত এবং জাপান সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে উভয় পক্ষের বিমান বাহিনী শীঘ্রই একটি ‘ভারত-জাপান ফাইটার এক্সারসাইজ’ পরিচালনা করবে যদিও তারা আরও জটিল এবং শক্তিশালী দ্বিপাক্ষিক মহড়ার জন্যে অবিরাম প্রচেষ্টা চালানোর পরিকল্পনা করছে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক