০২:২৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ভারতীয়দের ইউক্রেন ছাড়ার পরামর্শ

গত মাসেই ইউক্রেনের চারটি অঞ্চলকে রাশিয়ার অন্তর্ভুক্ত বলে ঘোষণা করেছিল মস্কো। এরপর বুধবারই রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ওই চার অঞ্চলে সামরিক আইন জারি করেছে। যে চার অঞ্চলে সামরিক আইন জারি করা হয়েছে, সেই অঞ্চল হল ডোনেৎস্ক, লুহানস্ক, জাপোরিজিয়া ও খেরসন।

আর এর কয়েক ঘণ্টা পরেই ইউক্রেনের ভারতীয় দূতাবাস পক্ষ থেকে ইউক্রেন ছাড়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। ইউক্রেনের যুদ্ধ পরিস্থিতির ক্রমশ অবনতি ঘটছে বলেই মনে করছে নয়াদিল্লি। সেই জন্যই দূতাবাসের পক্ষ থেকে ইউক্রেনে যাওয়ায় নিষেধ করা হয়েছে। পাশাপাশি যারা ইউক্রেনে রয়েছেন, তাঁদেরও দ্রুত ইউক্রেন ছাড়ার পরামর্শ দিয়েছে কেন্দ্র।

বুধবার রাতেই ইউক্রেনের পরিস্থিতি নিয়ে বিদেশ মন্ত্রকের পক্ষ থেকে সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে। সেখানেই পড়ুয়া-সহ ইউক্রেনে থাকা সমস্ত ভারতীয় নাগরিকদের ইউক্রেন ছাড়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। ভারতীয় দূতাবাসের পক্ষ থেকে ‘নিরাপত্তা পরিস্থিতির অবনতি’ উল্লেখ করে এক টুইটের মধ্যে দিয়ে বলা হয়েছে, ‘বর্তমানে ইউক্রেনে থাকা ছাত্র-ছাত্রী-সহ ভারতীয় নাগরিকদের যে কোনও উপায়ে অবিলম্বে ইউক্রেন ছেড়ে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।’

এদিকে, বিদেশমন্ত্রক সূত্রে খবর, ইউক্রেনের চারটি অঞ্চলে মার্শাল ল জারি করেছে পুতিন। এর ফলে ওই চার অঞ্চলের নাগরিকদের স্বাধীনভাবে যাতায়াতের অধিকার, এমনকি বাক স্বাধীনতাও খর্ব হতে পারে বলেই আশঙ্কা করা হচ্ছে। এর ফলে ইউক্রেনে যুদ্ধ পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে বলেই মনে করছে কেন্দ্র। সেই কারণেই বুধবার রাতেই বিদেশ মন্ত্রকের পক্ষ থেকে টুইটে বিবৃতি জারি করে ভারতীয়দের ইউক্রেনে যাওয়া থেকে বিরত থাকতে এবং সেখানে থাকা ভারতের নাগরিকদের অবিলম্বে দেশে ফেরার কথা বলা হয়েছে। শুধু বিদেশ মন্ত্রকই নয়, ইউক্রেনে ভারতীয় দূতাবাসের পক্ষ থেকেও এই ব্যাপারে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ইউক্রেনের ডোনেৎস্ক, লুহানস্ক, জাপোরিজিয়া ও খেরসনে আগেই গণভোটের আয়োজন করে ওই অঞ্চলকে রাশিয়ার অন্তর্ভুক্তি করার কথা ঘোষণা করেছিলেন রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন। এবার এই চার অঞ্চলেই জারি হয়েছে মার্শাল ল। রুশ প্রেসিডেন্টের এই ঘোষণার মধ্য দিয়েই ইউক্রেনের এই চার অঞ্চলে সামরিক শাসন জারি করা হয়েছে। এই এলাকাগুলো রুশ সেনার অধীনে চলে গেল বলেই মনে করা হচ্ছে। এর জেরে এই চার অঞ্চলে বসবাসকারী বাসিন্দাদের স্বাধীনতা খর্ব হতে পারে, যাতায়াত থেকে বাক স্বাধীনতায় নিয়ন্ত্রণ আসতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

বাস্তবে তেমনটাই হলে, বিগত ৮ মাস ধরে চলা দুই দেশের মধ্যে এই যুদ্ধের তীব্রতা আরও যে সাংঘাতিক আকার নেবে, সেই বিষয়ে কোনও সন্দেই নেই। সেই কারণেই ইউক্রেনের যুদ্ধ পরিস্থিতির অবনতি ঘটছে আশঙ্কা করে তড়িঘড়ি ভারতীয় নাগরিকদের ওই দেশ ছাড়ার আবেদন জানিয়েছে কেন্দ্র। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

ভারতীয়দের ইউক্রেন ছাড়ার পরামর্শ

প্রকাশ: ০২:১৬:৪৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ অক্টোবর ২০২২

গত মাসেই ইউক্রেনের চারটি অঞ্চলকে রাশিয়ার অন্তর্ভুক্ত বলে ঘোষণা করেছিল মস্কো। এরপর বুধবারই রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ওই চার অঞ্চলে সামরিক আইন জারি করেছে। যে চার অঞ্চলে সামরিক আইন জারি করা হয়েছে, সেই অঞ্চল হল ডোনেৎস্ক, লুহানস্ক, জাপোরিজিয়া ও খেরসন।

আর এর কয়েক ঘণ্টা পরেই ইউক্রেনের ভারতীয় দূতাবাস পক্ষ থেকে ইউক্রেন ছাড়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। ইউক্রেনের যুদ্ধ পরিস্থিতির ক্রমশ অবনতি ঘটছে বলেই মনে করছে নয়াদিল্লি। সেই জন্যই দূতাবাসের পক্ষ থেকে ইউক্রেনে যাওয়ায় নিষেধ করা হয়েছে। পাশাপাশি যারা ইউক্রেনে রয়েছেন, তাঁদেরও দ্রুত ইউক্রেন ছাড়ার পরামর্শ দিয়েছে কেন্দ্র।

বুধবার রাতেই ইউক্রেনের পরিস্থিতি নিয়ে বিদেশ মন্ত্রকের পক্ষ থেকে সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে। সেখানেই পড়ুয়া-সহ ইউক্রেনে থাকা সমস্ত ভারতীয় নাগরিকদের ইউক্রেন ছাড়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। ভারতীয় দূতাবাসের পক্ষ থেকে ‘নিরাপত্তা পরিস্থিতির অবনতি’ উল্লেখ করে এক টুইটের মধ্যে দিয়ে বলা হয়েছে, ‘বর্তমানে ইউক্রেনে থাকা ছাত্র-ছাত্রী-সহ ভারতীয় নাগরিকদের যে কোনও উপায়ে অবিলম্বে ইউক্রেন ছেড়ে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।’

এদিকে, বিদেশমন্ত্রক সূত্রে খবর, ইউক্রেনের চারটি অঞ্চলে মার্শাল ল জারি করেছে পুতিন। এর ফলে ওই চার অঞ্চলের নাগরিকদের স্বাধীনভাবে যাতায়াতের অধিকার, এমনকি বাক স্বাধীনতাও খর্ব হতে পারে বলেই আশঙ্কা করা হচ্ছে। এর ফলে ইউক্রেনে যুদ্ধ পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে বলেই মনে করছে কেন্দ্র। সেই কারণেই বুধবার রাতেই বিদেশ মন্ত্রকের পক্ষ থেকে টুইটে বিবৃতি জারি করে ভারতীয়দের ইউক্রেনে যাওয়া থেকে বিরত থাকতে এবং সেখানে থাকা ভারতের নাগরিকদের অবিলম্বে দেশে ফেরার কথা বলা হয়েছে। শুধু বিদেশ মন্ত্রকই নয়, ইউক্রেনে ভারতীয় দূতাবাসের পক্ষ থেকেও এই ব্যাপারে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ইউক্রেনের ডোনেৎস্ক, লুহানস্ক, জাপোরিজিয়া ও খেরসনে আগেই গণভোটের আয়োজন করে ওই অঞ্চলকে রাশিয়ার অন্তর্ভুক্তি করার কথা ঘোষণা করেছিলেন রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন। এবার এই চার অঞ্চলেই জারি হয়েছে মার্শাল ল। রুশ প্রেসিডেন্টের এই ঘোষণার মধ্য দিয়েই ইউক্রেনের এই চার অঞ্চলে সামরিক শাসন জারি করা হয়েছে। এই এলাকাগুলো রুশ সেনার অধীনে চলে গেল বলেই মনে করা হচ্ছে। এর জেরে এই চার অঞ্চলে বসবাসকারী বাসিন্দাদের স্বাধীনতা খর্ব হতে পারে, যাতায়াত থেকে বাক স্বাধীনতায় নিয়ন্ত্রণ আসতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

বাস্তবে তেমনটাই হলে, বিগত ৮ মাস ধরে চলা দুই দেশের মধ্যে এই যুদ্ধের তীব্রতা আরও যে সাংঘাতিক আকার নেবে, সেই বিষয়ে কোনও সন্দেই নেই। সেই কারণেই ইউক্রেনের যুদ্ধ পরিস্থিতির অবনতি ঘটছে আশঙ্কা করে তড়িঘড়ি ভারতীয় নাগরিকদের ওই দেশ ছাড়ার আবেদন জানিয়েছে কেন্দ্র। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক