১২:৩৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

এফএটিএফ তালিকায় উন্নতি পাকিস্তানের, ক্ষুদ্ধ ভারত

অবশেষে এফএটিএফের ‘ধূসর তালিকা’ থেকে বেরিয়ে এল পাকিস্তান। ১৮ থেকে ২১ অক্টোবর প্যারিসে বৈঠকে বসে সন্ত্রাসবাদের উপর নজরদারি সংস্থা ফিন্যান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স। এই বৈঠকেই পাকিসস্তানকে তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এতে ক্ষুদ্ধ ভারত।
শুক্রবার এফএটিএফের প্রেসিডেন্ট টি রাজা কুমার বলেন, ‘ওদের (পাকিস্তান) ধূসর তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। তবে এখনও তাদের অনেক কিছুই (সন্ত্রাসবাদ দমন) করতে হবে। তবে তারা সমস্ত শর্ত পূরণ করেছে। আমরা সন্তুষ্ট। আমরা চাই সন্ত্রাসবাদে অর্থ জোগান ঠেকাতে আসিয়া-প্যাসিফিক এই সংগঠনটির সঙ্গে কাজ করুক পাকিস্তান।’
তিনি আরও বলেন, ‘পাকিস্তানে পরিদর্শনে গিয়েছিলেন এফএটিএফ প্রতিনিধিরা। তারা কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেছেন। পাকিস্তানি প্রশাসকদের মধ্যে যথেষ্ট রাজনৈতিক সদিচ্ছা রয়েছে।’
সন্ত্রাসবাদে আর্থিক ও অন্যান্য মদত বন্ধ করতে সংস্থাটি পাকিস্তানকে ৩৪টি শর্ত দিয়েছিল। এর সব কয়টি শর্ত পূরণ করেছে ইসলামাবাদ। ওই শর্তের মধ্যে ২৭টি ছিল সন্ত্রাসে আর্থিক মদত সংক্রান্ত এবং সাতটি বেআইনি অর্থ পাচারের বিষয়ে।
২৯ আগস্ট থেকে ২ সেপ্টেম্বর পাকিস্তান সফর করে এফএটিএফ-এর ১৫ সদস্যের একটি দল। যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, ফ্রান্স, অস্ট্রেলিয়া, ইইউ, এশিয়া প্যাসিফিক গ্রুপ (এপিজি) এবং অন্যান্যদের প্রতিনিধিরা পূর্ণাঙ্গ অধিবেশন চলাকালীন রিপোর্ট জমা দেন এবং আলোচনা করেন।
‘ধূসর তালিকা’ থেকে বের হওয়ার পর আশাবাদী পাকিস্তান। এর ফলে বিভিন্ন আর্থিক নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়া ও ইসলামাবাদের পক্ষে আন্তর্জাতিক সাহায্য পেতে সুবিধা হবে।
এফএটিএফ এর ২০৬ জনের প্রতিনিধি দলে রয়েছেন আন্তর্জাতিক অর্থ ভাণ্ডার (আইএমএফ), জাতিসংঘ, বিশ্ব ব্যাংক, এগমন্ট গ্রুপ অফ ফিনান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিটসহ বিভিন্ন সংস্থার সদস্যরা। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক
ট্যাগ:

এফএটিএফ তালিকায় উন্নতি পাকিস্তানের, ক্ষুদ্ধ ভারত

প্রকাশ: ০৪:১৬:৪৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ অক্টোবর ২০২২
অবশেষে এফএটিএফের ‘ধূসর তালিকা’ থেকে বেরিয়ে এল পাকিস্তান। ১৮ থেকে ২১ অক্টোবর প্যারিসে বৈঠকে বসে সন্ত্রাসবাদের উপর নজরদারি সংস্থা ফিন্যান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স। এই বৈঠকেই পাকিসস্তানকে তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এতে ক্ষুদ্ধ ভারত।
শুক্রবার এফএটিএফের প্রেসিডেন্ট টি রাজা কুমার বলেন, ‘ওদের (পাকিস্তান) ধূসর তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। তবে এখনও তাদের অনেক কিছুই (সন্ত্রাসবাদ দমন) করতে হবে। তবে তারা সমস্ত শর্ত পূরণ করেছে। আমরা সন্তুষ্ট। আমরা চাই সন্ত্রাসবাদে অর্থ জোগান ঠেকাতে আসিয়া-প্যাসিফিক এই সংগঠনটির সঙ্গে কাজ করুক পাকিস্তান।’
তিনি আরও বলেন, ‘পাকিস্তানে পরিদর্শনে গিয়েছিলেন এফএটিএফ প্রতিনিধিরা। তারা কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেছেন। পাকিস্তানি প্রশাসকদের মধ্যে যথেষ্ট রাজনৈতিক সদিচ্ছা রয়েছে।’
সন্ত্রাসবাদে আর্থিক ও অন্যান্য মদত বন্ধ করতে সংস্থাটি পাকিস্তানকে ৩৪টি শর্ত দিয়েছিল। এর সব কয়টি শর্ত পূরণ করেছে ইসলামাবাদ। ওই শর্তের মধ্যে ২৭টি ছিল সন্ত্রাসে আর্থিক মদত সংক্রান্ত এবং সাতটি বেআইনি অর্থ পাচারের বিষয়ে।
২৯ আগস্ট থেকে ২ সেপ্টেম্বর পাকিস্তান সফর করে এফএটিএফ-এর ১৫ সদস্যের একটি দল। যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, ফ্রান্স, অস্ট্রেলিয়া, ইইউ, এশিয়া প্যাসিফিক গ্রুপ (এপিজি) এবং অন্যান্যদের প্রতিনিধিরা পূর্ণাঙ্গ অধিবেশন চলাকালীন রিপোর্ট জমা দেন এবং আলোচনা করেন।
‘ধূসর তালিকা’ থেকে বের হওয়ার পর আশাবাদী পাকিস্তান। এর ফলে বিভিন্ন আর্থিক নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়া ও ইসলামাবাদের পক্ষে আন্তর্জাতিক সাহায্য পেতে সুবিধা হবে।
এফএটিএফ এর ২০৬ জনের প্রতিনিধি দলে রয়েছেন আন্তর্জাতিক অর্থ ভাণ্ডার (আইএমএফ), জাতিসংঘ, বিশ্ব ব্যাংক, এগমন্ট গ্রুপ অফ ফিনান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিটসহ বিভিন্ন সংস্থার সদস্যরা। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক