০৯:০৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইউক্রেনে পারমাণবিক বিকল্পে সতর্কতা রাজনাথের

বুধবার (২৬ অক্টোবর), আরও একবার ফোনে রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রী সের্গেই শোইগুকে আলোচনার মাধ্যমে ইউক্রেন যুদ্ধের সমাধান করার আহ্বান জানালেন ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং। ভারত সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে রাজনাথ সিং রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রীকে জানিয়েছেন, কোনও পক্ষেরই পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করা উচিত নয়। অন্যদিকে, নয়া দিল্লির রুশ দূতাবাস জানিয়েছে, রাজনাথের কাছে ইউক্রেন তাদের বিরুদ্ধে ‘ডার্টি বম্ব’ ব্যবহার করতে পারে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন সের্গেই শোইগু।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, শোইগুকে রাজনাথ বলেন, “পারমাণবিক বা রেডিওলজিক্যাল অস্ত্র ব্যবহার মানবতার মৌলিক নীতির বিরোধী।” টেলিফোনিক আলোচনায় দুই মন্ত্রীই দ্বিপাক্ষিক প্রতিরক্ষা সহযোগিতার পাশাপাশি ইউক্রেনের ক্রমাবনতিশীল পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেন। ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক আরও জানিয়েছে, শোইগু ইউক্রেনের পরিস্থিতি সম্পর্কে ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রীকে অবহিত করেন। কিয়েভ ‘ডার্টি বম্ব’ ব্যবহার করে পারমাণবিক যুদ্ধের উসকানি দিতে পারে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। দুই মন্ত্রীই নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ রাখার বিষয়ে সম্মত হয়েছেন।

শোইগু রবিবার থেকেই এই একই বিষয়ে ন্যাটোর সদস্য দেশগুলির প্রতিরক্ষা মন্ত্রীদের সঙ্গে বেশ কয়েকটি টেলিফোনিক আলোচনা করেছেন। ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ সাংবাদিকদের বলেছেন, মস্কো আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছ থেকে এই বিষয়ে সক্রিয় প্রতিক্রিয়া প্রত্যাশা করছে রাশিয়া। এই বিষয়ে শোইগু চীনা প্রতিপক্ষ মন্ত্রীকেও ফোন করেছিলেন বলে জানা গিয়েছে। তবে, ইউক্রেন এবং তার পশ্চিমী মিত্রশক্তি রাশিয়ার এই অভিযোগ সরাসরি প্রত্যাখ্যান করেছে। তাদের মতে, ইউক্রেন “ডার্টি বোমা” ব্যবহার করার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে ক্রেমলিনের যে দাবি করছে, তা আসলে যুদ্ধ আরও জোরদার করার অজুহাত।

“রেডিওলজিক্যাল ডিসপারসাল ডিভাইস” নামেও পরিচিত “ডার্টি বম্ব”। এটি এমন এক অস্ত্র, যা ডিনামাইটের মতো প্রচলিত বিস্ফোরক এবং ইউরেনিয়ামের মতো তেজস্ক্রিয় পদার্থের সমন্বয়ে তৈরি করা হয়। এই বোমার লক্ষ্য হল তেজস্ক্রিয় পদার্থকে বিস্ফোরণস্থলের আশেপাশে ছড়িয়ে দেওয়া। “ডার্টি বম্ব” কিন্তু পারমাণবিক অস্ত্র নয়। পারমাণবিক অস্ত্রের ক্ষেত্রে পরমাণুর বিভাজন ঘটে, যার ফলে বিশাল পরিমাণ শক্তি মুক্ত হয়। কিন্তু, ডার্টি বম্বের ক্ষেত্রে বিস্ফোরণ অত্যন্ত ছোট জায়গায় হয়। বড় মাপের ধ্বংস ঘটানোর পরিবর্তে তেজস্ক্রিয় ধূলিকণা, ধোঁয়া এবং অন্যান্য উপাদান ছড়িয়ে দেয়। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

ইউক্রেনে পারমাণবিক বিকল্পে সতর্কতা রাজনাথের

প্রকাশ: ০৪:০০:০৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৬ অক্টোবর ২০২২

বুধবার (২৬ অক্টোবর), আরও একবার ফোনে রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রী সের্গেই শোইগুকে আলোচনার মাধ্যমে ইউক্রেন যুদ্ধের সমাধান করার আহ্বান জানালেন ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং। ভারত সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে রাজনাথ সিং রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রীকে জানিয়েছেন, কোনও পক্ষেরই পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করা উচিত নয়। অন্যদিকে, নয়া দিল্লির রুশ দূতাবাস জানিয়েছে, রাজনাথের কাছে ইউক্রেন তাদের বিরুদ্ধে ‘ডার্টি বম্ব’ ব্যবহার করতে পারে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন সের্গেই শোইগু।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, শোইগুকে রাজনাথ বলেন, “পারমাণবিক বা রেডিওলজিক্যাল অস্ত্র ব্যবহার মানবতার মৌলিক নীতির বিরোধী।” টেলিফোনিক আলোচনায় দুই মন্ত্রীই দ্বিপাক্ষিক প্রতিরক্ষা সহযোগিতার পাশাপাশি ইউক্রেনের ক্রমাবনতিশীল পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেন। ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক আরও জানিয়েছে, শোইগু ইউক্রেনের পরিস্থিতি সম্পর্কে ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রীকে অবহিত করেন। কিয়েভ ‘ডার্টি বম্ব’ ব্যবহার করে পারমাণবিক যুদ্ধের উসকানি দিতে পারে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। দুই মন্ত্রীই নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ রাখার বিষয়ে সম্মত হয়েছেন।

শোইগু রবিবার থেকেই এই একই বিষয়ে ন্যাটোর সদস্য দেশগুলির প্রতিরক্ষা মন্ত্রীদের সঙ্গে বেশ কয়েকটি টেলিফোনিক আলোচনা করেছেন। ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ সাংবাদিকদের বলেছেন, মস্কো আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছ থেকে এই বিষয়ে সক্রিয় প্রতিক্রিয়া প্রত্যাশা করছে রাশিয়া। এই বিষয়ে শোইগু চীনা প্রতিপক্ষ মন্ত্রীকেও ফোন করেছিলেন বলে জানা গিয়েছে। তবে, ইউক্রেন এবং তার পশ্চিমী মিত্রশক্তি রাশিয়ার এই অভিযোগ সরাসরি প্রত্যাখ্যান করেছে। তাদের মতে, ইউক্রেন “ডার্টি বোমা” ব্যবহার করার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে ক্রেমলিনের যে দাবি করছে, তা আসলে যুদ্ধ আরও জোরদার করার অজুহাত।

“রেডিওলজিক্যাল ডিসপারসাল ডিভাইস” নামেও পরিচিত “ডার্টি বম্ব”। এটি এমন এক অস্ত্র, যা ডিনামাইটের মতো প্রচলিত বিস্ফোরক এবং ইউরেনিয়ামের মতো তেজস্ক্রিয় পদার্থের সমন্বয়ে তৈরি করা হয়। এই বোমার লক্ষ্য হল তেজস্ক্রিয় পদার্থকে বিস্ফোরণস্থলের আশেপাশে ছড়িয়ে দেওয়া। “ডার্টি বম্ব” কিন্তু পারমাণবিক অস্ত্র নয়। পারমাণবিক অস্ত্রের ক্ষেত্রে পরমাণুর বিভাজন ঘটে, যার ফলে বিশাল পরিমাণ শক্তি মুক্ত হয়। কিন্তু, ডার্টি বম্বের ক্ষেত্রে বিস্ফোরণ অত্যন্ত ছোট জায়গায় হয়। বড় মাপের ধ্বংস ঘটানোর পরিবর্তে তেজস্ক্রিয় ধূলিকণা, ধোঁয়া এবং অন্যান্য উপাদান ছড়িয়ে দেয়। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক