০২:৩১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

“বৈশ্বিক বৃদ্ধির অগ্রদূত ভারত”

করোনা মহামারী ও ইউক্রেন ইস্যুতে চলমান বৈশ্বিক মন্দার মাঝেও ভারত বৈশ্বিক বৃদ্ধির অন্যতম আলোকবর্তিকা হয়ে উঠেছে বলে মন্তব্য করেছেন ভারতের কেন্দ্রীয় ইলেকট্রনিক্স ও আইটি প্রতিমন্ত্রী রাজীব চন্দ্রশেখর। শনিবার, সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইতে বিশ্ব সাধভবন অনুষ্ঠানে প্রবাসী ভারতীয়দের সাথে আলাপকালে এমন বক্তব্য দেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশের আভ্যন্তরীণ কাঠামোয় সাহসী সংস্কারের কারণে ভারত আজ ‘বিশ্বের বৃদ্ধির আলোকবর্তিকা’ হয়ে উঠেছে। আজ প্রমাণিত যে ভারত আক্ষরিক অর্থেই বিশ্বের বৃহৎ গণতন্ত্র।

তিনি বলেন, “ভারত এখন পরিবর্তনের সন্ধিক্ষণে রয়েছে। আমরা আজ যেখানে আছি, সেখান থেকে আগামী ২৫ বছরে ভারত কেবল এগিয়েই যেতে পারে এবং পেছানোর সুযোগ নেই।”

চন্দ্রশেখর বলেন, “ভারত এখন কেবলই ধর্মনিরপেক্ষ এবং বৈচিত্র্যময় জাতি হিসেবে পরিচিত নয়। বরং, অর্থনৈতিক উন্নয়ন, উদ্ভাবন, বৃদ্ধি এবং সমৃদ্ধির জন্য গোটা বিশ্বে সমাদৃত।”

অনুষ্ঠানে, প্রধানমন্ত্রী মোদীর বিগত ২০ বছরের প্রশাসনিক জীবন ও জনজীবনে এর প্রভাবের উপর লিখিত “মোদী@২০: ড্রিমস মিট ডেলিভারি” এবং “হার্টফেল্ট: দ্য লিগেসি অফ ফেইথ” নামে দুটি বইয়ের মোড়কও উন্মোচন করেন।

উল্লেখ্য, দুবাইয়ে একদিনের সফরেই গিয়েছিলেন চন্দ্রশেখর। এদিন, সংযুক্ত আরব আমিরাতের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, ডিজিটাল অর্থনীতি এবং রিমোট ওয়ার্ক অ্যাপ্লিকেশনের প্রতিমন্ত্রী ওমর সুলতান আল ওলামার সাথে একটি বৈঠকও করেন তিনি। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

“বৈশ্বিক বৃদ্ধির অগ্রদূত ভারত”

প্রকাশ: ০৯:১৪:৩৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৬ নভেম্বর ২০২২

করোনা মহামারী ও ইউক্রেন ইস্যুতে চলমান বৈশ্বিক মন্দার মাঝেও ভারত বৈশ্বিক বৃদ্ধির অন্যতম আলোকবর্তিকা হয়ে উঠেছে বলে মন্তব্য করেছেন ভারতের কেন্দ্রীয় ইলেকট্রনিক্স ও আইটি প্রতিমন্ত্রী রাজীব চন্দ্রশেখর। শনিবার, সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইতে বিশ্ব সাধভবন অনুষ্ঠানে প্রবাসী ভারতীয়দের সাথে আলাপকালে এমন বক্তব্য দেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশের আভ্যন্তরীণ কাঠামোয় সাহসী সংস্কারের কারণে ভারত আজ ‘বিশ্বের বৃদ্ধির আলোকবর্তিকা’ হয়ে উঠেছে। আজ প্রমাণিত যে ভারত আক্ষরিক অর্থেই বিশ্বের বৃহৎ গণতন্ত্র।

তিনি বলেন, “ভারত এখন পরিবর্তনের সন্ধিক্ষণে রয়েছে। আমরা আজ যেখানে আছি, সেখান থেকে আগামী ২৫ বছরে ভারত কেবল এগিয়েই যেতে পারে এবং পেছানোর সুযোগ নেই।”

চন্দ্রশেখর বলেন, “ভারত এখন কেবলই ধর্মনিরপেক্ষ এবং বৈচিত্র্যময় জাতি হিসেবে পরিচিত নয়। বরং, অর্থনৈতিক উন্নয়ন, উদ্ভাবন, বৃদ্ধি এবং সমৃদ্ধির জন্য গোটা বিশ্বে সমাদৃত।”

অনুষ্ঠানে, প্রধানমন্ত্রী মোদীর বিগত ২০ বছরের প্রশাসনিক জীবন ও জনজীবনে এর প্রভাবের উপর লিখিত “মোদী@২০: ড্রিমস মিট ডেলিভারি” এবং “হার্টফেল্ট: দ্য লিগেসি অফ ফেইথ” নামে দুটি বইয়ের মোড়কও উন্মোচন করেন।

উল্লেখ্য, দুবাইয়ে একদিনের সফরেই গিয়েছিলেন চন্দ্রশেখর। এদিন, সংযুক্ত আরব আমিরাতের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, ডিজিটাল অর্থনীতি এবং রিমোট ওয়ার্ক অ্যাপ্লিকেশনের প্রতিমন্ত্রী ওমর সুলতান আল ওলামার সাথে একটি বৈঠকও করেন তিনি। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক