০২:০৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ইউক্রেন যুদ্ধ থামাতে সংলাপই একমাত্র পথ: ভারত

সংলাপ ও কূটনীতিই এগিয়ে যাওয়ার একমাত্র পথ। ইউক্রেন ইস্যুতে রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদের ব্রিফিংয়ে বললেন সেখানে নিযুক্ত ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত রুচিরা কাম্বোজ। তিনি বলেন, সংঘাত বাড়ায় এমন কাজ পরিহার করতে হবে। ‘বর্তমান যুগ যুদ্ধের নয়’ একথাও বলেছেন তিনি।

ভারতীয় সময় অনুযায়ী শনিবার সকালে রাষ্ট্রপুঞ্জে ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি, রাষ্ট্রদূত রুচিরা কাম্বোজ বলেছেন, “সংলাপ ও কূটনীতিই এগিয়ে যাওয়ার একমাত্র পথ। সংঘাত বাড়ায় এমন কাজ এড়িয়ে চলা উচিত…আমাদের প্রধানমন্ত্রী যেমন বলেছেন, বর্তমান যুগ যুদ্ধের যুগ নয়…।”

নিরাপত্তা পরিষদে তিনি জানান, “ভারত উভয় পক্ষকে কূটনীতি ও আলোচনার পথে ফিরে আসার আহ্‌বান জানিয়েছে এবং সঙ্ঘাত নিরসনে সব ধরনের কূটনৈতিক প্রচেষ্টায় তাদের সমর্থনের কথা জানিয়েছে।”

উত্তেজনা প্রশমনের লক্ষ্যে সব প্রচেষ্টাকে সমর্থন করতে ভারত প্রস্তুত বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, “প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী- রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এবং ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির সঙ্গে কূটনীতি ও আলোচনা নিয়ে কথা বলেছেন।

নাম উল্লেখ না করে তিনি ইউক্রেনের বেসামরিক অবকাঠামোর উপর হামলার জন্য রাশিয়ার মৃদু সমালোচনা করেন, যার ফলে দেশের বিভিন্ন অংশে বিদ্যুৎ ও পানি সরবরাহ নেটওয়ার্কে সঙ্কট দেখা দিয়েছে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

ইউক্রেন যুদ্ধ থামাতে সংলাপই একমাত্র পথ: ভারত

প্রকাশ: ০৫:৫৬:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১১ ডিসেম্বর ২০২২

সংলাপ ও কূটনীতিই এগিয়ে যাওয়ার একমাত্র পথ। ইউক্রেন ইস্যুতে রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদের ব্রিফিংয়ে বললেন সেখানে নিযুক্ত ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত রুচিরা কাম্বোজ। তিনি বলেন, সংঘাত বাড়ায় এমন কাজ পরিহার করতে হবে। ‘বর্তমান যুগ যুদ্ধের নয়’ একথাও বলেছেন তিনি।

ভারতীয় সময় অনুযায়ী শনিবার সকালে রাষ্ট্রপুঞ্জে ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি, রাষ্ট্রদূত রুচিরা কাম্বোজ বলেছেন, “সংলাপ ও কূটনীতিই এগিয়ে যাওয়ার একমাত্র পথ। সংঘাত বাড়ায় এমন কাজ এড়িয়ে চলা উচিত…আমাদের প্রধানমন্ত্রী যেমন বলেছেন, বর্তমান যুগ যুদ্ধের যুগ নয়…।”

নিরাপত্তা পরিষদে তিনি জানান, “ভারত উভয় পক্ষকে কূটনীতি ও আলোচনার পথে ফিরে আসার আহ্‌বান জানিয়েছে এবং সঙ্ঘাত নিরসনে সব ধরনের কূটনৈতিক প্রচেষ্টায় তাদের সমর্থনের কথা জানিয়েছে।”

উত্তেজনা প্রশমনের লক্ষ্যে সব প্রচেষ্টাকে সমর্থন করতে ভারত প্রস্তুত বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, “প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী- রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এবং ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির সঙ্গে কূটনীতি ও আলোচনা নিয়ে কথা বলেছেন।

নাম উল্লেখ না করে তিনি ইউক্রেনের বেসামরিক অবকাঠামোর উপর হামলার জন্য রাশিয়ার মৃদু সমালোচনা করেন, যার ফলে দেশের বিভিন্ন অংশে বিদ্যুৎ ও পানি সরবরাহ নেটওয়ার্কে সঙ্কট দেখা দিয়েছে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক