০৯:১৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

জয়শঙ্করের অস্ট্রেলিয়া সফরে সম্পর্কে গতি

অস্ট্রেলিয়া সফরে ক্রিকেট-কূটনীতি বিদেশমন্ত্রী সুব্রহ্মণ্যম জয়শংকরের। অজি বিদেশমন্ত্রী পেনি ওয়ং-কে উপহার হিসেবে দিলেন ভারত অধিনায়ক রোহিত শর্মার স্বাক্ষরিক ব্যাট। এছাড়াও অজি প্রধানমন্ত্রী অ্যান্টনিও আলবেনিজের সঙ্গেও ক্রিকেট নিয়ে কথা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

শনিবার সিডনিতে অজি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন বিদেশমন্ত্রী জয়শংকর। বৈঠকের পর টুইট করেন তিনি। সেখানে জয়শংকর লেখেন, “অবশ্যই ক্রিকেট নিয়ে আলোচনা হয়েছে।”

প্রসঙ্গত, দিল্লিতে বর্ডার-গাভাস্কার ট্রফির দ্বিতীয় টেস্টে মুখোমুখি হয়েছে ভারত ও অস্ট্রেলিয়া। টুইটে সেই ম্যাচের কথা উল্লেখ করেন বিদেশমন্ত্রী জয়শংকর। এর পরই অজি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ক্রিকেট নিয়ে আলোচনার কথা লেখেন তিনি।

অন্যদিকে অজি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের আগে শনিবার সেদেশের বিদেশমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন জয়শংকর। ওই দিন সিডনিতে একটি আলোচনাচক্রে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। সেখানে উপস্থিত ছিলেন অজি বিদেশমন্ত্রী পেনি ওয়ং।

ওই অনুষ্ঠানেই পেনি ওয়ংয়ের হাতে রোহিত শর্মার স্বাক্ষরিত ব্যাট উপহার হিসেবে তুলে দেন বিদেশমন্ত্রী জয়শংকর। অস্ট্রেলিয়ার তরফেও ভারতের বিদেশমন্ত্রীকে উপহার দেওয়া হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ক্রিকেট ছাড়া কোন কোন বিষয়ে আলোচনা হয়েছে, তাও জানিয়েছেন বিদেশমন্ত্রী জয়শংকর। অস্ট্রেলিয়াকে ভারতের কৌশলগত সঙ্গী বলে উল্লেখ করেন তিনি।

নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে জয়শংকর লেখেন, “পরিবর্তিত বিশ্বে ভারত ও অস্ট্রেলিয়া কৌশলগত অংশীদারিত্ব গড়ে তুলেছে।” উন্নয়নের প্রশ্নে দুই দেশ যে ভবিষ্যতে আরও কাছাকাছি আসবে, তার স্পষ্ট ইঙ্গিত দেন তিনি।

এর পাশাপাশি সিডনির আলোচনাচক্রে দেওয়া ভাষণে জয়শংকর বলেন, কোভিড অতিমারী গোটা বিশ্বের অর্থনীতিতে বড় প্রভাব ফেলেছে। “ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার বাসিন্দারা এই অর্থনৈতিক মন্দার প্রভাব ততটা বুঝতে পারেনি। কিন্তু আপনি যদি আফ্রিকা ও মধ্য এশিয়ার দেশগুলিতে যান, তা হলে পরিস্থিতির ভয়াবহতা বুঝতে পারবেন।” সিডনির আলোচনা সভায় বলেন বিদেশমন্ত্রী।

কোভিড অতিমারী কাটতেই ভারতের প্রতিবেশী দেশগুলিতে দেখা গিয়েছে চরম আর্থিক সংকট। গত বছর দেউলিয়া অবস্থা হয় শ্রীলঙ্কার। এছাড়া আর্থিক সংকটে ভুগছে পাকিস্তান, নেপাল, বাংলাদেশ ও মায়ানমার।

শনিবারের আলোচনা সভায় এই প্রসঙ্গ তোলেন বিদেশমন্ত্রী। জয়শংকর বলেন, “দৃঢ়তার সঙ্গে কোভিড অতিমারীর মোকাবিলা করেছে ভারত। তবে গত কয়েক মাসে শ্রীলঙ্কা, বাংলাদেশে বা নেপালে আর্থিক মন্দা আমাদের নজরে এসেছে।”

আর্থিক সংকট থেকে বাঁচতে আন্তর্জাতিক অর্থ ভাণ্ডার বা আইএমএফ-র কাছে ঋণের আবেদন করেছে শ্রীলঙ্কা। আইএমএফ -র দ্বারস্থ হয়েছে বাংলাদেশ ও নেপালও। শ্রীলঙ্কা যাতে ঋণ পায় তার জন্য যাবতীয় সাহায্য করা শুরু করেছে ভারত। এই তালিকায় পাকিস্তানের নাম থাকলেও শনিবার তা উল্লেখ করেননি বিদেশমন্ত্রী জয়শংকর। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

জয়শঙ্করের অস্ট্রেলিয়া সফরে সম্পর্কে গতি

প্রকাশ: ০৬:৪২:২৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

অস্ট্রেলিয়া সফরে ক্রিকেট-কূটনীতি বিদেশমন্ত্রী সুব্রহ্মণ্যম জয়শংকরের। অজি বিদেশমন্ত্রী পেনি ওয়ং-কে উপহার হিসেবে দিলেন ভারত অধিনায়ক রোহিত শর্মার স্বাক্ষরিক ব্যাট। এছাড়াও অজি প্রধানমন্ত্রী অ্যান্টনিও আলবেনিজের সঙ্গেও ক্রিকেট নিয়ে কথা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

শনিবার সিডনিতে অজি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন বিদেশমন্ত্রী জয়শংকর। বৈঠকের পর টুইট করেন তিনি। সেখানে জয়শংকর লেখেন, “অবশ্যই ক্রিকেট নিয়ে আলোচনা হয়েছে।”

প্রসঙ্গত, দিল্লিতে বর্ডার-গাভাস্কার ট্রফির দ্বিতীয় টেস্টে মুখোমুখি হয়েছে ভারত ও অস্ট্রেলিয়া। টুইটে সেই ম্যাচের কথা উল্লেখ করেন বিদেশমন্ত্রী জয়শংকর। এর পরই অজি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ক্রিকেট নিয়ে আলোচনার কথা লেখেন তিনি।

অন্যদিকে অজি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের আগে শনিবার সেদেশের বিদেশমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন জয়শংকর। ওই দিন সিডনিতে একটি আলোচনাচক্রে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। সেখানে উপস্থিত ছিলেন অজি বিদেশমন্ত্রী পেনি ওয়ং।

ওই অনুষ্ঠানেই পেনি ওয়ংয়ের হাতে রোহিত শর্মার স্বাক্ষরিত ব্যাট উপহার হিসেবে তুলে দেন বিদেশমন্ত্রী জয়শংকর। অস্ট্রেলিয়ার তরফেও ভারতের বিদেশমন্ত্রীকে উপহার দেওয়া হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ক্রিকেট ছাড়া কোন কোন বিষয়ে আলোচনা হয়েছে, তাও জানিয়েছেন বিদেশমন্ত্রী জয়শংকর। অস্ট্রেলিয়াকে ভারতের কৌশলগত সঙ্গী বলে উল্লেখ করেন তিনি।

নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে জয়শংকর লেখেন, “পরিবর্তিত বিশ্বে ভারত ও অস্ট্রেলিয়া কৌশলগত অংশীদারিত্ব গড়ে তুলেছে।” উন্নয়নের প্রশ্নে দুই দেশ যে ভবিষ্যতে আরও কাছাকাছি আসবে, তার স্পষ্ট ইঙ্গিত দেন তিনি।

এর পাশাপাশি সিডনির আলোচনাচক্রে দেওয়া ভাষণে জয়শংকর বলেন, কোভিড অতিমারী গোটা বিশ্বের অর্থনীতিতে বড় প্রভাব ফেলেছে। “ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার বাসিন্দারা এই অর্থনৈতিক মন্দার প্রভাব ততটা বুঝতে পারেনি। কিন্তু আপনি যদি আফ্রিকা ও মধ্য এশিয়ার দেশগুলিতে যান, তা হলে পরিস্থিতির ভয়াবহতা বুঝতে পারবেন।” সিডনির আলোচনা সভায় বলেন বিদেশমন্ত্রী।

কোভিড অতিমারী কাটতেই ভারতের প্রতিবেশী দেশগুলিতে দেখা গিয়েছে চরম আর্থিক সংকট। গত বছর দেউলিয়া অবস্থা হয় শ্রীলঙ্কার। এছাড়া আর্থিক সংকটে ভুগছে পাকিস্তান, নেপাল, বাংলাদেশ ও মায়ানমার।

শনিবারের আলোচনা সভায় এই প্রসঙ্গ তোলেন বিদেশমন্ত্রী। জয়শংকর বলেন, “দৃঢ়তার সঙ্গে কোভিড অতিমারীর মোকাবিলা করেছে ভারত। তবে গত কয়েক মাসে শ্রীলঙ্কা, বাংলাদেশে বা নেপালে আর্থিক মন্দা আমাদের নজরে এসেছে।”

আর্থিক সংকট থেকে বাঁচতে আন্তর্জাতিক অর্থ ভাণ্ডার বা আইএমএফ-র কাছে ঋণের আবেদন করেছে শ্রীলঙ্কা। আইএমএফ -র দ্বারস্থ হয়েছে বাংলাদেশ ও নেপালও। শ্রীলঙ্কা যাতে ঋণ পায় তার জন্য যাবতীয় সাহায্য করা শুরু করেছে ভারত। এই তালিকায় পাকিস্তানের নাম থাকলেও শনিবার তা উল্লেখ করেননি বিদেশমন্ত্রী জয়শংকর। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক