০৮:৫১ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

জি-২০ পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বিভেদ কাটানোর আহ্বান মোদীর

এবারের জি২০ শীর্ষ সম্মেলন হবে ভারতে, আগামী ৯-১০ সেপ্টেম্বর। এতে যোগদানের জন্য বিশেষ দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে জোটের বর্তমান সভাপতি ভারত। শীর্ষ সম্মেলনকে সামনে রেখে বুধবার রাতে নয়াদিল্লিতে শুরু হয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রী পর্যায়ের সম্মেলন।

বৃহস্পতিবার (২ মার্চ) ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে শুরু হয়েছে বিশ্বের ২০ বৃহৎ অর্থনীতির দেশের জোট জি-২০ পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের সম্মেলন। এ সম্মেলন শুরুর আগে সমস্যা সমাধানে বিশ্ব এক হতে না পারার বিষয়টির তীব্র সমালোচনা করেছেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ‘বিশ্ব শাসন ব্যর্থ হয়েছে’ এবং বহুপাক্ষিক ঐক্য যে হুমকির মুখে আছে সেটি যেন তারা স্বীকার করে নেন।

এদিকে জি-২০ মূলত অর্থনীতি বিষয়ক জোট হলেও এবারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পর্যায়ের সম্মেলনে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের বিষয়টিই আলোচনার মুখ্য বিষয় থাকবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। যদিও ভারত চায় এ সম্মেলনে দারিদ্র বিমোচন এবং জলবায়ু অর্থায়নের বিষয়টি প্রাধান্য পাক।

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রথম বার্ষিকী ও পশ্চিমের ক্রমবর্ধমান উদ্বেগের মধ্যে এই বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

১৯টি দেশ নিয়ে এই জোট গঠিত। দেশগুলো হচ্ছে- আর্জেন্টিনা, অস্ট্রেলিয়া, ব্রাজিল, কানাডা, চীন, ফ্রান্স, জার্মানি, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, ইতালি, জাপান, রিপাবলিক অব কোরিয়া, মেক্সিকো, রাশিয়া, সৌদি আরব, দক্ষিণ আফ্রিকা, তুরস্ক, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

বৈশ্বিক জিডিপি’র প্রায় ৮৫ শতাংশ, বৈশ্বিক বাণিজ্যের ৭৫ শতাংশের বেশি ও বিশ্ব জনসংখ্যার দুই-তৃতীয়াংশের প্রতিনিধিত্ব করছে জি-২০ সদস্য রাষ্ট্রগুলো। ১৯৯৯ সালে জি-২০ গঠিত হয়। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

জি-২০ পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বিভেদ কাটানোর আহ্বান মোদীর

প্রকাশ: ০৭:৪৫:২৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২ মার্চ ২০২৩

এবারের জি২০ শীর্ষ সম্মেলন হবে ভারতে, আগামী ৯-১০ সেপ্টেম্বর। এতে যোগদানের জন্য বিশেষ দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে জোটের বর্তমান সভাপতি ভারত। শীর্ষ সম্মেলনকে সামনে রেখে বুধবার রাতে নয়াদিল্লিতে শুরু হয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রী পর্যায়ের সম্মেলন।

বৃহস্পতিবার (২ মার্চ) ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে শুরু হয়েছে বিশ্বের ২০ বৃহৎ অর্থনীতির দেশের জোট জি-২০ পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের সম্মেলন। এ সম্মেলন শুরুর আগে সমস্যা সমাধানে বিশ্ব এক হতে না পারার বিষয়টির তীব্র সমালোচনা করেছেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ‘বিশ্ব শাসন ব্যর্থ হয়েছে’ এবং বহুপাক্ষিক ঐক্য যে হুমকির মুখে আছে সেটি যেন তারা স্বীকার করে নেন।

এদিকে জি-২০ মূলত অর্থনীতি বিষয়ক জোট হলেও এবারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পর্যায়ের সম্মেলনে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের বিষয়টিই আলোচনার মুখ্য বিষয় থাকবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। যদিও ভারত চায় এ সম্মেলনে দারিদ্র বিমোচন এবং জলবায়ু অর্থায়নের বিষয়টি প্রাধান্য পাক।

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রথম বার্ষিকী ও পশ্চিমের ক্রমবর্ধমান উদ্বেগের মধ্যে এই বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

১৯টি দেশ নিয়ে এই জোট গঠিত। দেশগুলো হচ্ছে- আর্জেন্টিনা, অস্ট্রেলিয়া, ব্রাজিল, কানাডা, চীন, ফ্রান্স, জার্মানি, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, ইতালি, জাপান, রিপাবলিক অব কোরিয়া, মেক্সিকো, রাশিয়া, সৌদি আরব, দক্ষিণ আফ্রিকা, তুরস্ক, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

বৈশ্বিক জিডিপি’র প্রায় ৮৫ শতাংশ, বৈশ্বিক বাণিজ্যের ৭৫ শতাংশের বেশি ও বিশ্ব জনসংখ্যার দুই-তৃতীয়াংশের প্রতিনিধিত্ব করছে জি-২০ সদস্য রাষ্ট্রগুলো। ১৯৯৯ সালে জি-২০ গঠিত হয়। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক