০১:১৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

স্বাধীনতার পচাত্তরে ভারতের রপ্তানি ৭৫০ বিলিয়ন ডলার

মঙ্গলবার দেশের কেন্দ্রীয় বাণিজ্য মন্ত্রী পীযূষ গোয়েল বলেছেন যে ভারতের সামগ্রিক রফতানি সর্বকালের সর্বোচ্চ ৭৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বা ৬১৭৪০৯০ কোটি টাকা অতিক্রম করেছে। বস্তুত দেশের রফতানি ২০২০-২১ সালে ৫০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ছিল। সেখান থেকে তা ৭৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রফতানির রেকর্ড করেছে। মহামরী পরবর্তী চ্যালেঞ্জিং সময় দেশ এত বড় একটি সফলতা অর্জন করেছে।

উচ্চ মুদ্রাস্ফীতি এবং ইউক্রেনে যুদ্ধ সহ বিভিন্ন কারণের জন্য বিশ্বব্যাপী প্রতিকূল অর্থনৈতিক অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। তবে তাও দেশের রফতানি ব্যপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০২১-২২ সালে, দেশের পণ্য ও পরিষেবা রফতানি সর্বকালের সর্বোচ্চ যথাক্রমে ৪২২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং ২৫৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার স্পর্শ করেছে। উভয় মিলে ৬৭৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রফতানি করেছে।

কেন্দ্রীয় বাণিজ্য মন্ত্রী পীযূষ গোয়াল বলেছেন যে পণ্যদ্রব্য এবং পরিষেবা রফতানি উভয় ক্ষেত্রেই বৃদ্ধি হয়েছে। তিনি আরও বলেন যে পুরো বিশ্ব মন্দার মধ্যে রয়েছে, বেশিরভাগ উন্নত দেশগুলির জন্য মুদ্রাস্ফীতি সর্বকালের সর্বোচ্চে রয়েছে। সুদের হার বেড়ে চলেছে এবং বিশ্বের বাকি অংশে ধ্বংস ও হতাশার অনুভূতি রয়েছে।

বাণিজ্য মন্ত্রী পীযূষ গয়াল গত বছর সংযুক্ত আরব আমিরশাহী এবং অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে স্বাক্ষরিত দুটি বাণিজ্য চুক্তি সম্পর্কে আলোচনা করেন। তিনি বলেন যে অস্ট্রেলিয়া এবং সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর সঙ্গে ভারতের বাণিজ্য চুক্তিগুলি তিনটি দেশের অর্থনীতিতে বিশেষ প্রভাব ফেলেছে। ভারতের বাণিজ্যে ব্যপক বৃদ্ধিতে ওই দুটি চুক্তিরও গুরুত্ব রয়েছে।

ভারত গত বছরের মার্চে সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর সঙ্গে বাণিজ্য চুক্তি করে। তখন জারি করা একটি বিবৃতি অনুসারে, ভারত তার শুল্ক লাইনের ৯৭ শতাংশের বেশি আরব আমিরশাহীর অগ্রাধিকারমূলক বাজার অ্যাক্সেস থেকে উপকৃত হবে। বাণিজ্য মন্ত্রী পীযূষ গয়াল তখন বলেছিলেন যে বাণিজ্যকে আরও সম্প্রসারণের জন্য বিভিন্ন পর্যায়ে এফটিএগুলির একটি সিরিজ আলোচনার অধীনে রয়েছে। যা অর্থনীতির পরিবর্তনের সুযোগগুলি আরও উন্মুক্ত করবে।

এই মাসের শুরুতে প্রকাশিত বাণিজ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুসারে, ভারতের রফতানি ফেব্রুয়ারিতে টানা তৃতীয় মাসে ৮.৮ শতাংশ কমে ৩৩.৮৮ বিলিয়ন ডলার হয়েছে যা গত বছরের একই মাসে ৩৭.১৫ বিলিয়ন ডলার ছিল। আমদানিও ৮.২১ শতাংশ কমে ৫১.৩১ বিলিয়ন ডলার হয়েছে যা গত বছরের একই মাসে রেকর্ড করা হয়েছিল ৫৫.৯ বিলিয়ন ডলার। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

স্বাধীনতার পচাত্তরে ভারতের রপ্তানি ৭৫০ বিলিয়ন ডলার

প্রকাশ: ০১:৩২:৫৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ মার্চ ২০২৩

মঙ্গলবার দেশের কেন্দ্রীয় বাণিজ্য মন্ত্রী পীযূষ গোয়েল বলেছেন যে ভারতের সামগ্রিক রফতানি সর্বকালের সর্বোচ্চ ৭৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বা ৬১৭৪০৯০ কোটি টাকা অতিক্রম করেছে। বস্তুত দেশের রফতানি ২০২০-২১ সালে ৫০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ছিল। সেখান থেকে তা ৭৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রফতানির রেকর্ড করেছে। মহামরী পরবর্তী চ্যালেঞ্জিং সময় দেশ এত বড় একটি সফলতা অর্জন করেছে।

উচ্চ মুদ্রাস্ফীতি এবং ইউক্রেনে যুদ্ধ সহ বিভিন্ন কারণের জন্য বিশ্বব্যাপী প্রতিকূল অর্থনৈতিক অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। তবে তাও দেশের রফতানি ব্যপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০২১-২২ সালে, দেশের পণ্য ও পরিষেবা রফতানি সর্বকালের সর্বোচ্চ যথাক্রমে ৪২২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং ২৫৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার স্পর্শ করেছে। উভয় মিলে ৬৭৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রফতানি করেছে।

কেন্দ্রীয় বাণিজ্য মন্ত্রী পীযূষ গোয়াল বলেছেন যে পণ্যদ্রব্য এবং পরিষেবা রফতানি উভয় ক্ষেত্রেই বৃদ্ধি হয়েছে। তিনি আরও বলেন যে পুরো বিশ্ব মন্দার মধ্যে রয়েছে, বেশিরভাগ উন্নত দেশগুলির জন্য মুদ্রাস্ফীতি সর্বকালের সর্বোচ্চে রয়েছে। সুদের হার বেড়ে চলেছে এবং বিশ্বের বাকি অংশে ধ্বংস ও হতাশার অনুভূতি রয়েছে।

বাণিজ্য মন্ত্রী পীযূষ গয়াল গত বছর সংযুক্ত আরব আমিরশাহী এবং অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে স্বাক্ষরিত দুটি বাণিজ্য চুক্তি সম্পর্কে আলোচনা করেন। তিনি বলেন যে অস্ট্রেলিয়া এবং সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর সঙ্গে ভারতের বাণিজ্য চুক্তিগুলি তিনটি দেশের অর্থনীতিতে বিশেষ প্রভাব ফেলেছে। ভারতের বাণিজ্যে ব্যপক বৃদ্ধিতে ওই দুটি চুক্তিরও গুরুত্ব রয়েছে।

ভারত গত বছরের মার্চে সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর সঙ্গে বাণিজ্য চুক্তি করে। তখন জারি করা একটি বিবৃতি অনুসারে, ভারত তার শুল্ক লাইনের ৯৭ শতাংশের বেশি আরব আমিরশাহীর অগ্রাধিকারমূলক বাজার অ্যাক্সেস থেকে উপকৃত হবে। বাণিজ্য মন্ত্রী পীযূষ গয়াল তখন বলেছিলেন যে বাণিজ্যকে আরও সম্প্রসারণের জন্য বিভিন্ন পর্যায়ে এফটিএগুলির একটি সিরিজ আলোচনার অধীনে রয়েছে। যা অর্থনীতির পরিবর্তনের সুযোগগুলি আরও উন্মুক্ত করবে।

এই মাসের শুরুতে প্রকাশিত বাণিজ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুসারে, ভারতের রফতানি ফেব্রুয়ারিতে টানা তৃতীয় মাসে ৮.৮ শতাংশ কমে ৩৩.৮৮ বিলিয়ন ডলার হয়েছে যা গত বছরের একই মাসে ৩৭.১৫ বিলিয়ন ডলার ছিল। আমদানিও ৮.২১ শতাংশ কমে ৫১.৩১ বিলিয়ন ডলার হয়েছে যা গত বছরের একই মাসে রেকর্ড করা হয়েছিল ৫৫.৯ বিলিয়ন ডলার। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক