০৯:০২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

“ভারতে বাণিজ্যিক বিমান তৈরির বিশাল সুযোগ রয়েছে”

আগামী ১০ বছরে ভারত আরও দু হাজার বাণিজ্যিক বিমান কেনার পরিকল্পনা করেছে বলে জানিয়েছেন দেশটির কেন্দ্রীয় বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রী পীযূষ গোয়েল। গোটা বিষয়টিকে ভারতের আভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক চাহিদা মেটানোর অন্যতম সুবর্ণ সুযোগ হিসেবে দেখছেন তিনি।

মঙ্গলবার, ফ্রান্সের ফরেন ট্রেড, ইকোনমিক অ্যাট্রাকটিভনেস এবং প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী অলিভিয়ার বেখটের সাথে বৈঠকের পর এ বিষয়ে নিজের মতামত তুলে ধরেন গোয়েল।

দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য বৃদ্ধির কথা উল্লেখ করে মোদী মন্ত্রীসভার গুরুত্বপূর্ণ এই মন্ত্রী আরও বলেন, রাফালে যুদ্ধবিমান ক্রয় এবং সাম্প্রতিক এয়ারবাস অর্ডারের সাথে এই অংশীদারিত্ব আরও সুপ্রসারিত হয়েছে।

এদিকে, সম্প্রতি অশোধিত তেল রফতানিকারী এবং তাদের সহযোগী দেশগুলির জোট বৃহত্তর ওপেক গোষ্ঠী উৎপাদন ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়ায় বিশ্ব বাজারে ফের মাথা তুলেছে তার দাম। বেশ কিছু দিন পরে ব্রেন্ট ক্রুডের ব্যারেল ৮০ ডলার পেরিয়েছে। এ বার উদ্বেগ বাড়িয়ে ইন্টারন্যাশনাল এনার্জি এজেন্সি (আইইএ) জানাল, উৎপাদন ছাঁটার সিদ্ধান্ত বিশ্ব অর্থনীতির পক্ষে ঝুঁকির। এতে তেলের দর আরও চড়তে পারে। যা ভারতের মতো দেশের আমদানির খরচ বাড়াবে।

সংশ্লিষ্ট মহলের বক্তব্য, এক দফা উৎপাদন শুল্ক ছাঁটাইয়ের পরে ভারতে পেট্রল-ডিজ়েলের দাম গত ২৩ মে থেকে স্থির। সম্প্রতি অশোধিত তেল ৮০ ডলারের অনেকটা নীচে নামলেও দেশে জ্বালানি সস্তা হয়নি। কেন্দ্র এবং রাষ্ট্রায়ত্ত তেল সংস্থাগুলির দাবি ছিল, বিশ্ব বাজারের চড়া দাম সত্ত্বেও এক সময় তেলের দাম বাড়ানো হয়নি। সেই লোকসান ভরতে তাই কমানো হচ্ছে না। ফলে উদ্বেগ, আসন্ন লোকসভা ভোটে চোখ রেখে দাম যদি এখন না-ও বাড়ে, বিশ্ব বাজারে এই দফায় দাম বৃদ্ধির যুক্তিতে ভবিষ্যতে পেট্রল-ডিজ়েলের দাম কমার রাস্তা আরও কিছু দিন আটকে যেতে পারে।

ভারত-ফ্রান্স দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বিস্তারের লক্ষ্যে প্যারিসে বাণিজ্যমন্ত্রী পীযূষ গয়ালের সঙ্গে বৈঠকের পরে আইইএ-র প্রধান ফাতি বিরল বলেন, ‘‘উৎপাদন ছাঁটাই তেলের দামে চাপ বাড়াবে। বিশ্ব অর্থনীতি যখন নড়বড়ে, বহু উদীয়মান দেশের পরিস্থিতি কঠিন, তখন এই সিদ্ধান্ত বিশ্বের পক্ষেই ঝুঁকির।’’ এখন ব্রেন্ট ৮৫ ডলার। তা ফের ১০০ ছাড়াবে কি না, বলেননি ফাতি। তবে তাঁর ধারণা, এ বছরের দ্বিতীয়ার্ধে দর আরও বাড়বে। যা অর্থনীতি ও ক্রেতার চাপ বাড়াবে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

“ভারতে বাণিজ্যিক বিমান তৈরির বিশাল সুযোগ রয়েছে”

প্রকাশ: ১২:২৪:১৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ এপ্রিল ২০২৩

আগামী ১০ বছরে ভারত আরও দু হাজার বাণিজ্যিক বিমান কেনার পরিকল্পনা করেছে বলে জানিয়েছেন দেশটির কেন্দ্রীয় বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রী পীযূষ গোয়েল। গোটা বিষয়টিকে ভারতের আভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক চাহিদা মেটানোর অন্যতম সুবর্ণ সুযোগ হিসেবে দেখছেন তিনি।

মঙ্গলবার, ফ্রান্সের ফরেন ট্রেড, ইকোনমিক অ্যাট্রাকটিভনেস এবং প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী অলিভিয়ার বেখটের সাথে বৈঠকের পর এ বিষয়ে নিজের মতামত তুলে ধরেন গোয়েল।

দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য বৃদ্ধির কথা উল্লেখ করে মোদী মন্ত্রীসভার গুরুত্বপূর্ণ এই মন্ত্রী আরও বলেন, রাফালে যুদ্ধবিমান ক্রয় এবং সাম্প্রতিক এয়ারবাস অর্ডারের সাথে এই অংশীদারিত্ব আরও সুপ্রসারিত হয়েছে।

এদিকে, সম্প্রতি অশোধিত তেল রফতানিকারী এবং তাদের সহযোগী দেশগুলির জোট বৃহত্তর ওপেক গোষ্ঠী উৎপাদন ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়ায় বিশ্ব বাজারে ফের মাথা তুলেছে তার দাম। বেশ কিছু দিন পরে ব্রেন্ট ক্রুডের ব্যারেল ৮০ ডলার পেরিয়েছে। এ বার উদ্বেগ বাড়িয়ে ইন্টারন্যাশনাল এনার্জি এজেন্সি (আইইএ) জানাল, উৎপাদন ছাঁটার সিদ্ধান্ত বিশ্ব অর্থনীতির পক্ষে ঝুঁকির। এতে তেলের দর আরও চড়তে পারে। যা ভারতের মতো দেশের আমদানির খরচ বাড়াবে।

সংশ্লিষ্ট মহলের বক্তব্য, এক দফা উৎপাদন শুল্ক ছাঁটাইয়ের পরে ভারতে পেট্রল-ডিজ়েলের দাম গত ২৩ মে থেকে স্থির। সম্প্রতি অশোধিত তেল ৮০ ডলারের অনেকটা নীচে নামলেও দেশে জ্বালানি সস্তা হয়নি। কেন্দ্র এবং রাষ্ট্রায়ত্ত তেল সংস্থাগুলির দাবি ছিল, বিশ্ব বাজারের চড়া দাম সত্ত্বেও এক সময় তেলের দাম বাড়ানো হয়নি। সেই লোকসান ভরতে তাই কমানো হচ্ছে না। ফলে উদ্বেগ, আসন্ন লোকসভা ভোটে চোখ রেখে দাম যদি এখন না-ও বাড়ে, বিশ্ব বাজারে এই দফায় দাম বৃদ্ধির যুক্তিতে ভবিষ্যতে পেট্রল-ডিজ়েলের দাম কমার রাস্তা আরও কিছু দিন আটকে যেতে পারে।

ভারত-ফ্রান্স দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বিস্তারের লক্ষ্যে প্যারিসে বাণিজ্যমন্ত্রী পীযূষ গয়ালের সঙ্গে বৈঠকের পরে আইইএ-র প্রধান ফাতি বিরল বলেন, ‘‘উৎপাদন ছাঁটাই তেলের দামে চাপ বাড়াবে। বিশ্ব অর্থনীতি যখন নড়বড়ে, বহু উদীয়মান দেশের পরিস্থিতি কঠিন, তখন এই সিদ্ধান্ত বিশ্বের পক্ষেই ঝুঁকির।’’ এখন ব্রেন্ট ৮৫ ডলার। তা ফের ১০০ ছাড়াবে কি না, বলেননি ফাতি। তবে তাঁর ধারণা, এ বছরের দ্বিতীয়ার্ধে দর আরও বাড়বে। যা অর্থনীতি ও ক্রেতার চাপ বাড়াবে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক