১০:০৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

লাদাখ সীমান্তে শান্তি রাখতে সম্মত চীন-ভারত

আগামী সপ্তাহেই ভারতে আসছেন চিনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী। তার প্রাক্কালে রবিবার মুখোমুখি বসলেন ভারত ও চিনা সেনা কম্যান্ডারের শীর্ষ আধিকারিকেরা। মূলত, এলএসি ইস্যু নিয়েই এদিন পূর্ব লাদাখে বৈঠকে বসে দু-পক্ষ। লাদাখ সীমান্তে চিনা আগ্রাসনের পর গত তিন বছরে এই নিয়ে মোট ১৮ বার মুখোমুখি বসলেন ভারত-চিন সেনা কম্যান্ডার।

সূত্রের খবর, এদিন পূর্ব লাদাখে লেফটেন্যান্ট জেনারেল রশিম বালির নেতৃত্বে চিনা কম্যান্ডারদের মুখোমুখি বসেন ভারতীয় সেনা আধিকারিকেরা। মূলত, এলএসি সীমান্তে স্থিতাবস্থা বজায় রাখতেই এদিন আলোচনায় বসেন দুই দেশের সেনা আধিকারিকেরা। আগামী সপ্তাহে সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশন (এসসিও) প্রতিরক্ষা মন্ত্রীদের বৈঠকে যোগ দিতেই ভারতে আসছেন চিনা প্রতিরক্ষামন্ত্রী লি শাংফু। তাঁর এই সফরের আগে ভারত-চিন কম্যান্ডার বৈঠক বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ।

প্রসঙ্গত, বর্তমানে ফের এলএসি-র কাছে লালফৌজের সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। অন্যদিকে, চিনা আগ্রাসন মোকাবিলায় ভারতও পূর্ব লাদাখ সেক্টরে নতুন-নতুন ব়্যাডার এবং বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মোতায়েন করে চলেছে। ফলে সীমান্ত পরিস্থিতি যাতে নতুন করে উত্তপ্ত হয়ে না ওঠে, তার জন্যই আলোচনার মাধ্যমে সমাধান সূত্র খুঁজতে এদিন ফের আলোচনায় বসেন দুই দেশের শীর্ষ কম্যান্ডারেরা।

২০২০ সালে করোনা মহামারীর সময় এলএসি-তে সাম্প্রতিককালে প্রথম চিনা আগ্রাসনের ঘটনা ঘটে। যদিও ভারতীয় সেনাবাহিনী যোগ্য জবাব দেয়। তবে তার পর থেকে দফায়-দফায় বেশ কয়েকবার দুই দেশের সেনা সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে লাদাখ। সমাধান সূত্রে খুঁজতে ইতিমধ্যে একাধিকবার বৈঠকে বসেছেন ভারত-চিনা সেনা কম্যান্ডার থেকে দু-দেশের কূটনীতিকরা। কিন্তু, বর্তমানে ফের এলএসি-তে লালফৌজের সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। তাই দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক উন্নীত করতে ফের কম্যান্ডার স্তরে আলোচনা শুরু হল। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

লাদাখ সীমান্তে শান্তি রাখতে সম্মত চীন-ভারত

প্রকাশ: ০৮:০০:৫৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৩

আগামী সপ্তাহেই ভারতে আসছেন চিনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী। তার প্রাক্কালে রবিবার মুখোমুখি বসলেন ভারত ও চিনা সেনা কম্যান্ডারের শীর্ষ আধিকারিকেরা। মূলত, এলএসি ইস্যু নিয়েই এদিন পূর্ব লাদাখে বৈঠকে বসে দু-পক্ষ। লাদাখ সীমান্তে চিনা আগ্রাসনের পর গত তিন বছরে এই নিয়ে মোট ১৮ বার মুখোমুখি বসলেন ভারত-চিন সেনা কম্যান্ডার।

সূত্রের খবর, এদিন পূর্ব লাদাখে লেফটেন্যান্ট জেনারেল রশিম বালির নেতৃত্বে চিনা কম্যান্ডারদের মুখোমুখি বসেন ভারতীয় সেনা আধিকারিকেরা। মূলত, এলএসি সীমান্তে স্থিতাবস্থা বজায় রাখতেই এদিন আলোচনায় বসেন দুই দেশের সেনা আধিকারিকেরা। আগামী সপ্তাহে সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশন (এসসিও) প্রতিরক্ষা মন্ত্রীদের বৈঠকে যোগ দিতেই ভারতে আসছেন চিনা প্রতিরক্ষামন্ত্রী লি শাংফু। তাঁর এই সফরের আগে ভারত-চিন কম্যান্ডার বৈঠক বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ।

প্রসঙ্গত, বর্তমানে ফের এলএসি-র কাছে লালফৌজের সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। অন্যদিকে, চিনা আগ্রাসন মোকাবিলায় ভারতও পূর্ব লাদাখ সেক্টরে নতুন-নতুন ব়্যাডার এবং বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মোতায়েন করে চলেছে। ফলে সীমান্ত পরিস্থিতি যাতে নতুন করে উত্তপ্ত হয়ে না ওঠে, তার জন্যই আলোচনার মাধ্যমে সমাধান সূত্র খুঁজতে এদিন ফের আলোচনায় বসেন দুই দেশের শীর্ষ কম্যান্ডারেরা।

২০২০ সালে করোনা মহামারীর সময় এলএসি-তে সাম্প্রতিককালে প্রথম চিনা আগ্রাসনের ঘটনা ঘটে। যদিও ভারতীয় সেনাবাহিনী যোগ্য জবাব দেয়। তবে তার পর থেকে দফায়-দফায় বেশ কয়েকবার দুই দেশের সেনা সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে লাদাখ। সমাধান সূত্রে খুঁজতে ইতিমধ্যে একাধিকবার বৈঠকে বসেছেন ভারত-চিনা সেনা কম্যান্ডার থেকে দু-দেশের কূটনীতিকরা। কিন্তু, বর্তমানে ফের এলএসি-তে লালফৌজের সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। তাই দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক উন্নীত করতে ফের কম্যান্ডার স্তরে আলোচনা শুরু হল। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক