০২:৩৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

৫০৮ রেলস্টেশন পুনর্নির্মাণ ভিত্তিপ্রস্তর মোদীর

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী রবিবার সারা দেশে ৫০৮ টি রেলওয়ে স্টেশনের পুনর্নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন। প্রধানমন্ত্রী কার্যত ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে অংশ নেন। পশ্চিমবঙ্গের শিয়ালদা, মালদা টাউন, বোলপুর, বর্ধমান জংশন, নিউ আলিপুরদুয়ার, নিউ মাল জংশন, তারকেশ্বর এবং রামপুরহাট জংশন সহ একাধিক স্টেশনগুলি এই প্রকল্পের অধীনে এসেছে। যার মধ্যে বিশেষ গুরুত্ব পাবে শিয়ালদা স্টেশন।

প্রকল্পের অধীনে, একটি সুপরিকল্পিত ট্রাফিক সঞ্চালন নিশ্চিত করার পাশাপাশি আধুনিক যাত্রী সুবিধাগুলি স্থাপন করা হবে। এছাড়াও, যাত্রীদের নির্দেশনার জন্য ইন্টার – মডেল ইন্টিগ্রেশন এবং ভালো ভাবে ডিজাইন করা সাইনেজও ইনস্টল করা হবে বলে এখনও পর্যন্ত জানা গিয়েছে। স্টেশনগুলির নকশা তৈরিতে স্থানীয় সংস্কৃতি, ঐতিহ্য এবং স্থাপত্যের দিকে লক্ষ্য দেওয়া হবে।

এই স্টেশনগুলি ২৪,৪৭০ কোটি টাকারও বেশি ব্যয়ে পুনর্নির্মাণ করা হবে। শহরের উভয় দিকের যথাযথ একীকরণের সঙ্গে, এই স্টেশনগুলিকে ‘সিটি সেন্টার’ হিসাবে বিকাশের জন্য মাস্টার প্ল্যান তৈরি করা হচ্ছে। রেলওয়ে স্টেশনগুলিকে কেন্দ্র করে শহরের সামগ্রিক নগর উন্নয়নের কাজ করা হবে। এই প্রকল্পের লক্ষ্য হল রেলওয়ে স্টেশনগুলির জন্য একটি মাস্টার প্ল্যান তৈরি করা এবং পর্যায়ক্রমে স্টেশনগুলিকে পুনর্গঠন করা।

এই প্রকল্পের অধীনে শিয়ালদা স্টেশন পেয়েছে ২৭ কোটি টাকা। অপরদিকে, আসানসোল পেয়েছে ৪৩১ কোটি টাকা। বর্ধমান স্টেশনের জন্য দেওয়া হয়েছে ৬৪ কোটি টাকা। এই টাকা দিয়ে ফুট ওভারব্রিজ, এসকেলেটর, লিফট, টু-হুইলার এবং গাড়ি পার্কিং এলাকা, সাইনবোর্ড, প্ল্যাটফর্মের উন্নতি এবং প্ল্যাটফর্মের আশ্রয়কেন্দ্রগুলি উন্নত করা হবে।

এছাড়া, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর এই বিশেষ প্রকল্পের অধীনে স্টেশনগুলিতে উন্নত অ্যাক্সেস, সার্কুলেটিং এরিয়া, ওয়েটিং হল, টয়লেট, লিফট বা এসকেলেটর, ফ্রি ওয়াই-ফাই, স্থানীয় পণ্যগুলির জন্য ‘ওয়ান স্টেশন ওয়ান প্রডাক্ট’ -এর মতো স্কিমের মাধ্যমে আপগ্রেড করার সুযোগ দেওয়া হয়েছে।

এর আগে শনিবার প্রধানমন্ত্রী টুইটারে বলেছিলেন যে এই প্রকল্পটি ‘জীবনযাত্রার সহজতা’ বাড়াবে এবং আরামের পাশাপাশি সুবিধা বাড়াবে। তার টুইটে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী স্থানীয় সংস্কৃতি, ঐতিহ্য এবং স্থাপত্যের সঙ্গে নতুন পুনর্নির্মিত রেলস্টেশনগুলিকে এক করার জন্য দেওয়া যত্নশীল মনোযোগও তুলে ধরেছেন।

সারাদেশে জনগণের পরিবহনের পছন্দের মাধ্যম হিসেবে রেলওয়ের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকাকে স্বীকৃতি দিয়ে প্রধানমন্ত্রী এই সব স্টেশনে বিশ্বমানের সুযোগ – সুবিধা প্রদানের প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দেন। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

৫০৮ রেলস্টেশন পুনর্নির্মাণ ভিত্তিপ্রস্তর মোদীর

প্রকাশ: ১১:৪৮:১৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ৬ অগাস্ট ২০২৩

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী রবিবার সারা দেশে ৫০৮ টি রেলওয়ে স্টেশনের পুনর্নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন। প্রধানমন্ত্রী কার্যত ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে অংশ নেন। পশ্চিমবঙ্গের শিয়ালদা, মালদা টাউন, বোলপুর, বর্ধমান জংশন, নিউ আলিপুরদুয়ার, নিউ মাল জংশন, তারকেশ্বর এবং রামপুরহাট জংশন সহ একাধিক স্টেশনগুলি এই প্রকল্পের অধীনে এসেছে। যার মধ্যে বিশেষ গুরুত্ব পাবে শিয়ালদা স্টেশন।

প্রকল্পের অধীনে, একটি সুপরিকল্পিত ট্রাফিক সঞ্চালন নিশ্চিত করার পাশাপাশি আধুনিক যাত্রী সুবিধাগুলি স্থাপন করা হবে। এছাড়াও, যাত্রীদের নির্দেশনার জন্য ইন্টার – মডেল ইন্টিগ্রেশন এবং ভালো ভাবে ডিজাইন করা সাইনেজও ইনস্টল করা হবে বলে এখনও পর্যন্ত জানা গিয়েছে। স্টেশনগুলির নকশা তৈরিতে স্থানীয় সংস্কৃতি, ঐতিহ্য এবং স্থাপত্যের দিকে লক্ষ্য দেওয়া হবে।

এই স্টেশনগুলি ২৪,৪৭০ কোটি টাকারও বেশি ব্যয়ে পুনর্নির্মাণ করা হবে। শহরের উভয় দিকের যথাযথ একীকরণের সঙ্গে, এই স্টেশনগুলিকে ‘সিটি সেন্টার’ হিসাবে বিকাশের জন্য মাস্টার প্ল্যান তৈরি করা হচ্ছে। রেলওয়ে স্টেশনগুলিকে কেন্দ্র করে শহরের সামগ্রিক নগর উন্নয়নের কাজ করা হবে। এই প্রকল্পের লক্ষ্য হল রেলওয়ে স্টেশনগুলির জন্য একটি মাস্টার প্ল্যান তৈরি করা এবং পর্যায়ক্রমে স্টেশনগুলিকে পুনর্গঠন করা।

এই প্রকল্পের অধীনে শিয়ালদা স্টেশন পেয়েছে ২৭ কোটি টাকা। অপরদিকে, আসানসোল পেয়েছে ৪৩১ কোটি টাকা। বর্ধমান স্টেশনের জন্য দেওয়া হয়েছে ৬৪ কোটি টাকা। এই টাকা দিয়ে ফুট ওভারব্রিজ, এসকেলেটর, লিফট, টু-হুইলার এবং গাড়ি পার্কিং এলাকা, সাইনবোর্ড, প্ল্যাটফর্মের উন্নতি এবং প্ল্যাটফর্মের আশ্রয়কেন্দ্রগুলি উন্নত করা হবে।

এছাড়া, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর এই বিশেষ প্রকল্পের অধীনে স্টেশনগুলিতে উন্নত অ্যাক্সেস, সার্কুলেটিং এরিয়া, ওয়েটিং হল, টয়লেট, লিফট বা এসকেলেটর, ফ্রি ওয়াই-ফাই, স্থানীয় পণ্যগুলির জন্য ‘ওয়ান স্টেশন ওয়ান প্রডাক্ট’ -এর মতো স্কিমের মাধ্যমে আপগ্রেড করার সুযোগ দেওয়া হয়েছে।

এর আগে শনিবার প্রধানমন্ত্রী টুইটারে বলেছিলেন যে এই প্রকল্পটি ‘জীবনযাত্রার সহজতা’ বাড়াবে এবং আরামের পাশাপাশি সুবিধা বাড়াবে। তার টুইটে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী স্থানীয় সংস্কৃতি, ঐতিহ্য এবং স্থাপত্যের সঙ্গে নতুন পুনর্নির্মিত রেলস্টেশনগুলিকে এক করার জন্য দেওয়া যত্নশীল মনোযোগও তুলে ধরেছেন।

সারাদেশে জনগণের পরিবহনের পছন্দের মাধ্যম হিসেবে রেলওয়ের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকাকে স্বীকৃতি দিয়ে প্রধানমন্ত্রী এই সব স্টেশনে বিশ্বমানের সুযোগ – সুবিধা প্রদানের প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দেন। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক