১১:৩৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সুরভীর জোড়া গোলে বাংলাদেশের নেপাল জয়

নেপালে অনূর্ধ্ব-১৬ সাফে শুভ সূচনা করেছে বাংলাদেশ। স্বাগতিকদের হারিয়েছে ২-০ ব্যবধানে। জোড়া গোল করেছেন সুরভী আকন্দ প্রীতি।

একদম নতুন দল নিয়ে এই টুর্নামেন্ট খেলতে গেছেন বাংলাদেশের মেয়েরা।

স্কোয়াডের অধিকাংশ খেলোয়াড় প্রথমবার দেশের বাইরে সফরে গেছেন। সেই তুলনায় শুরুটা দারুণ করল লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। যদিও শুরুতে একাধিক সুযোগ নষ্ট করেছেন সাইফুল বারীর শিষ্যরা। স্কোরলাইনে ঠিক বোঝা যাচ্ছে না কতটা দাপট দেখিয়েছে বাংলাদেশ।

পঞ্চম মিনিটেই সুযোগ নষ্ট করেন আলপি আক্তার। সাথী মুন্ডার ক্রস থেকে পোস্টের সামনে অরক্ষিত অবস্থায় বল পান আলপি, কিন্তু তাড়াহুড়ায় শট নিতে গিয়ে বল পাঠান ক্রসবারের ওপর দিয়ে। আলপি আবারও সুযোগ নষ্ট করেছেন একটু পর। মাঝমাঠ থেকে সতীর্থের বাড়ানো বল বুক দিয়ে দারুণভাবে রিসিভ করেছিলেন কিন্তু চলতি বলে বেশ জোরে ভলি করতে গিয়ে এবারও পাঠান ক্রসবারের ওপর দিয়ে।

আলপি সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ হলেও ২৪ মিনিটে কোনো ভুল করেননি সুরভী আকন্দ প্রীতি। আলপির পাস ধরে বক্সের বাইরে থেকে সাথী মুন্ডার রক্ষণ চেরা পাস পান প্রীতি। নিখুঁত শটে গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে ডান পায়ের শটে বল পাঠিয়ে এগিয়ে নেন বাংলাদেশকে। পাঁচ মিনিট পরেই ব্যবধান দ্বিগুণ করে বাংলাদেশ। বক্সের ভেতর আলপিকে ফেলে দেন নেপালের গোলরক্ষক। পেনাল্টির বাঁশি বাজাতে কার্পণ্য করেননি রেফারি। ঠাণ্ডা মাথায় স্পটকিকে বল জালে জড়ান সুরভী।

দ্বিতীয়ার্ধেও আধিপত্য দেখিয়ে খেলেছে বাংলাদেশ। হ্যাটট্রিকের সুযোগ এসেছিল সুরভীর সামনে; কিন্তু কাজে লাগাতে পারেননি এই ফরোয়ার্ড। অন্য ফরোয়ার্ডরাও জাল খুঁজে না পাওয়ায় জয়ের ব্যবধান বেশি বড় হয়নি।

আগামী ৫ মার্চ ভারতের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ। এই ম্যাচ জিতলেই টুর্নামেন্টের ফাইনাল নিশ্চিত হবে বাংলাদেশের।

ট্যাগ:

সুরভীর জোড়া গোলে বাংলাদেশের নেপাল জয়

প্রকাশ: ০৭:৫৫:০৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২ মার্চ ২০২৪

নেপালে অনূর্ধ্ব-১৬ সাফে শুভ সূচনা করেছে বাংলাদেশ। স্বাগতিকদের হারিয়েছে ২-০ ব্যবধানে। জোড়া গোল করেছেন সুরভী আকন্দ প্রীতি।

একদম নতুন দল নিয়ে এই টুর্নামেন্ট খেলতে গেছেন বাংলাদেশের মেয়েরা।

স্কোয়াডের অধিকাংশ খেলোয়াড় প্রথমবার দেশের বাইরে সফরে গেছেন। সেই তুলনায় শুরুটা দারুণ করল লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। যদিও শুরুতে একাধিক সুযোগ নষ্ট করেছেন সাইফুল বারীর শিষ্যরা। স্কোরলাইনে ঠিক বোঝা যাচ্ছে না কতটা দাপট দেখিয়েছে বাংলাদেশ।

পঞ্চম মিনিটেই সুযোগ নষ্ট করেন আলপি আক্তার। সাথী মুন্ডার ক্রস থেকে পোস্টের সামনে অরক্ষিত অবস্থায় বল পান আলপি, কিন্তু তাড়াহুড়ায় শট নিতে গিয়ে বল পাঠান ক্রসবারের ওপর দিয়ে। আলপি আবারও সুযোগ নষ্ট করেছেন একটু পর। মাঝমাঠ থেকে সতীর্থের বাড়ানো বল বুক দিয়ে দারুণভাবে রিসিভ করেছিলেন কিন্তু চলতি বলে বেশ জোরে ভলি করতে গিয়ে এবারও পাঠান ক্রসবারের ওপর দিয়ে।

আলপি সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ হলেও ২৪ মিনিটে কোনো ভুল করেননি সুরভী আকন্দ প্রীতি। আলপির পাস ধরে বক্সের বাইরে থেকে সাথী মুন্ডার রক্ষণ চেরা পাস পান প্রীতি। নিখুঁত শটে গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে ডান পায়ের শটে বল পাঠিয়ে এগিয়ে নেন বাংলাদেশকে। পাঁচ মিনিট পরেই ব্যবধান দ্বিগুণ করে বাংলাদেশ। বক্সের ভেতর আলপিকে ফেলে দেন নেপালের গোলরক্ষক। পেনাল্টির বাঁশি বাজাতে কার্পণ্য করেননি রেফারি। ঠাণ্ডা মাথায় স্পটকিকে বল জালে জড়ান সুরভী।

দ্বিতীয়ার্ধেও আধিপত্য দেখিয়ে খেলেছে বাংলাদেশ। হ্যাটট্রিকের সুযোগ এসেছিল সুরভীর সামনে; কিন্তু কাজে লাগাতে পারেননি এই ফরোয়ার্ড। অন্য ফরোয়ার্ডরাও জাল খুঁজে না পাওয়ায় জয়ের ব্যবধান বেশি বড় হয়নি।

আগামী ৫ মার্চ ভারতের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ। এই ম্যাচ জিতলেই টুর্নামেন্টের ফাইনাল নিশ্চিত হবে বাংলাদেশের।